• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • খাঁ খাঁ করছে দার্জিলিং!‌ এমন পাহাড়ের দেখা মেলেনি কোনওদিন

খাঁ খাঁ করছে দার্জিলিং!‌ এমন পাহাড়ের দেখা মেলেনি কোনওদিন

সিকিম ইতিমধ্যেই আগামী অক্টোবর পর্যন্ত পর্যটকদের প্রবেশে ‘‌না’‌ বলে দিয়েছে।

সিকিম ইতিমধ্যেই আগামী অক্টোবর পর্যন্ত পর্যটকদের প্রবেশে ‘‌না’‌ বলে দিয়েছে।

সিকিম ইতিমধ্যেই আগামী অক্টোবর পর্যন্ত পর্যটকদের প্রবেশে ‘‌না’‌ বলে দিয়েছে।

  • Share this:

 #‌দার্জিলিং: এ কোন ম্যাল! যা রাতের থেকেও দিনে বেশি অন্ধকার! খাঁ খাঁ করছে ম্যাল ক্যাম্পাস। পর্যটক দূরে থাক, দেখা নেই স্থানীয় বাসিন্দাদেরও। বছর তিনেক আগেও পৃথক রাজ্যের দাবীতে ১০০ দিনের বেশী টানা বন্‌ধ দেখেছে পাহাড়বাসী। তবে এবারের পরিস্থিতি একেবারেই আলাদা। আর পাঁচটা বন্‌ধ বা ধর্মঘট নয়!

কোথায় রোদ মাখা দুপুরে ম্যালে জমিয়ে আড্ডা?‌ ক্যাভেণ্টার্সে চেয়ারে বসে শরীর হেলিয়ে দার্জিলিং চায়ের কাপে চুমুক! আজ সবই অতীত। করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়েই চলছে লকডাউন। দার্জিলিংকে রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। আর তাই আরও সতর্ক পাহাড়বাসী। ঘরেই কাটছে দিন রাত।

পর্যটন ব্যবসা নেই। ভেঙে পড়ছে অর্থনীতি। কারণ, পর্যটনের ওপরেই পাহাড়ের অর্থনীতি নির্ভরশীল। এই শিল্পের সঙ্গে জড়িতদের মন আজ খারাপ। বিষন্ন! ম্যাল থেকে চকবাজার, ক্লাব সাইড থেকে পাতলেবাস। যেদিকেই দু'চোখ যায়, শুধুই শূণ্যতা। ধু ধু, ফাঁকা। প্রয়োজনীয় কাজ ছাড়া কেউই বাড়ি থেকে বের হচ্ছেন না। রাস্তায় পুলিশ। বাজারে ঢোকার মুখে করা হচ্ছে থার্মাল চেকিং। আর আজ সকাল থেকেই ঝিরঝিরে বৃষ্টি। যার জেরে তাপমাত্রা অনেকটাই নেমে এসছে। তবু ঘর বন্দী পাহাড়ের জনতা। করোনা আতঙ্ক তাড়া করে বেড়াচ্ছে পাহাড়েও।

সিকিম ইতিমধ্যেই আগামী অক্টোবর পর্যন্ত পর্যটকদের প্রবেশে ‘‌না’‌ বলে দিয়েছে। এদিকে দার্জিলিং জেলাকে রেড জোন হিসেবে কেন্দ্র ঘোষণা করায় ক্ষুব্ধ গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সভাপতি বিনয় তামাং। শেষ ২১ দিন পাহাড়ে কোনো আক্রান্তের কোনো খবর নেই। দার্জিলিং এবং কালিম্পংয়ে নতুন করে কোভিড আক্রান্তের খবর নেই। কালিম্পংয়ে আক্রান্তরা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। পাহাড়ের পরিস্থিতি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে। পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। এই কঠিন সময়ে রাজনীতি করা ঠিক নয় বলে মনে করেন তিনি। রমজান মাস চলছে। লকডাউনের জেরে সমস্যায় রয়েছেন পাহাড়ের মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকেরা। সেই কারণেই আজ ৪৬০ জনের হাতে ত্রান সামগ্রী তুলে দেন বিনয় তামাং।

Partha Sarkar

Published by:Uddalak Bhattacharya
First published: