corona virus btn
corona virus btn
Loading

সাইকেল চালাতে চালাতে প্রাণ হাত করে মোবাইলে ম্যাপ দেখা, তাঁতিরা পাড়ি দিলেন ৬০০ কিলোমিটার পথ

সাইকেল চালাতে চালাতে প্রাণ হাত করে মোবাইলে ম্যাপ দেখা, তাঁতিরা পাড়ি দিলেন ৬০০ কিলোমিটার পথ
Photo- Representive

এক একটা শাড়ি বোনেন যখন এক একজন নারীর স্বপ্ন বোনেন, কিন্তু এখন তাঁদের সামনে ঘোর বাস্তব

  • Share this:

#শান্তিপুর : লকডাউনে কাজ বন্ধ। এক মাসের উপর উপার্জন নেই। এই অবস্থায় ঘরে ফিরতে মরিয়ে শান্তিপুরের তাঁতিরা। ১৩ জন শ্রমিক সাইকেলে করেই নদিয়ার শান্তিপুর থেকে যাচ্ছেন কোচবিহারের দিনহাটা। সঙ্গে সাইকেল। পথ চিনতে মোবাইলের জিপিআরএস।

 শান্তিপুর থেকে দিনহাটা। জাতীয় সড়ক ধরে ৬০০ কিলোমিটারের বেশি পথ। এই পথেই চলেছেন ওঁরা। অথচ দোলের সময়ও ওঁরা ভাবত পারেননি এক মাসের মধ্যে সব ওলটপালট হয়ে যাবে। কোচবিহারের দিনহাটা থেকে পেটের টানে এসেছিলেন শান্তিপুরে। তাঁতের কাজ করেন ওঁরা। করোনা মোকাবিলায় এই লকডাউনে এখন সব এলোমেলো।

  তাঁতশিল্পী নকুল দাসের  কথায় ‘কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। আজ এক মাস থেকে খাওয়া-দাওয়া নেই। এবার মহাজন ঘরে রাখবে না। কারখানা বন্ধ করে দিয়েছে। কাজ নেই। সুতো আনতে পারছে না। শাড়ি বিক্রি করতে পারছে না। আমাদের টাকা দিতে পারছে না।’

আগামী দিন কী হবে, তাও বুঝতে পারছেন না। তাই শুক্রবার ভোর হতেই ১৩ জন ঘরের পথেই রওনা দিলেন। সাইকেলে চেপে। মাঝে দু’এক জায়গায় একটু থামা। আবার পথ চলা। কিন্তু রাস্তা চেনা কি সহজ? এই পরিস্থিতিতে পথে বাধাও তো থাকে। মোবাইল লোকেশন দেখে সাইকেলে চালিয়ে পৌঁছে যাওয়ার চেষ্টা ৷

ঘরে পৌঁছতে সোমবার তো হয়েই যাবে। ক্লান্ত হলেও থামার রাস্তা নেই। পেটের টানে একবার যে পথে গেছিলেন, আজ কঠিন সময়ে দাঁড়িয়ে সে পথে ফিরে যাওয়া। হয়ত আবার ফিরে আসবেন পুরোন কাজে। বা পেটের টানেই খুঁজে নিতে হবে অন্য পেশে।

Published by: Debalina Datta
First published: April 27, 2020, 6:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर