Home /News /coronavirus-latest-news /
করোনা আতঙ্কের জের ! বোর্ডের পর এবার বন্ধ হল সিএবি-ও

করোনা আতঙ্কের জের ! বোর্ডের পর এবার বন্ধ হল সিএবি-ও

১৭ মার্চ, অর্থাৎ মঙ্গলবার থেকে ২১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বাংলা ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা।

  • Share this:

#কলকাতা: বোর্ডের পর করোনা আতঙ্কের থাবা এবার সিএবিতে। সিএবি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত কর্তাদের। আপাতত ৫ দিন বন্ধ থাকবে সিএবি। কর্মীদের বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশ। মঙ্গলবার নোটিশ জারি করল সিএবি। ১৭ মার্চ, মঙ্গলবার থেকে ২১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বাংলা ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা।

ইতিমধ্যেই সিএবি আয়োজিত সমস্ত টুর্নামেন্ট বন্ধ রাখার নির্দেশ আগেই জারি করা হয়েছিল। প্রথম ডিভিশন, দ্বিতীয় ডিভিশন- -সহ জুনিয়র পর্যায়ের সমস্ত খেলা বন্ধ রয়েছে। এমনকি বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে সব দলের অনুশীলন। এবার সিএবি অফিসও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন কর্তারা। সমস্ত কর্মীদের শারীরিক সুরক্ষার কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান সিএবি প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়া। সিএবির তরফে জানানো হয়েছে, পরিস্থিতি আলোচনা ও পর্যালোচনা করেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সোমবার মুম্বাইয়ের বোর্ডের সদর দপ্তর বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। বিসিসিআইয়ের সমস্ত কর্মচারীকে বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। তবে কতদিন বন্ধ থাকবে বিসিসিআই অফিস তা এখনও ঠিক হয়নি। অনির্দিষ্টকালের জন্য এভাবেই কাজ হবে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে তবেই নতুন করে খোলা হবে বিসিসিআই দফতর। প্রেসিডেন্ট সৌরভ, সচিব জয় শাহ সহ সমস্ত কর্তাও বিসিসিআই দপ্তরে যাওয়া বন্ধ করেছেন। প্রেসিডেন্ট সৌরভ বেহালার অফিস থেকেই বোর্ডের কাজ করছেন। গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক গুলো ভিডিও কলিংয়ের মাধ্যমে করছেন বোর্ড কর্তারা। বিসিসিআইও ঘরোয়া ক্রিকেটের সমস্ত টুর্নামেন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। ইরানি ট্রফি সহ বোর্ডের একাধিক খেলা বন্ধ রাখা হয়েছে। ১৭ দিন পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে আইপিএলও। ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত রাখা হয়েছে টুর্নামেন্ট। বোর্ডের তরফে সব ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। বিকল্প হিসেবে একাধিক বিকল্প ব্যবস্থা ভেবে রেখেছে বোর্ড।

করোনা আতঙ্কের জেরে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা একদিনের সিরিজ বাতিল হয়ে গেছে। কলকাতা থেকে মঙ্গলবার দেশে ফিরে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা দল। কবে থেকে সমস্ত খেলা শুরু হবে তা নিয়ে নিশ্চিত করে কেউই বলতে পারছেন না। রোজ যেভাবে আতঙ্ক বাড়ছে সেক্ষেত্রে উদ্বেগে রয়েছেন বিসিসিআই সহ সিএবি কর্তারাও। এইভাবে চলছে টুর্নামেন্ট শেষ হওয়া সম্ভব নয় বলেই মনে করছেন সবাই।

Eeron Roy Barman

Published by:Siddhartha Sarkar
First published:

Tags: CAB, Coronavirus

পরবর্তী খবর