corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা যুদ্ধে মৃতদের শহিদের সম্মান দিল সিপিএম

করোনা যুদ্ধে মৃতদের শহিদের সম্মান দিল সিপিএম
করোনা যোদ্ধাদের সম্মান জানাল সিপিএম৷

লকডাউনে পরিযায়ী শ্রমিকদের পাশে থাকা থেকে শুরু করে ঘরবন্দি মানুষের মুখে খাবার জোগানো, লাগাতার কাজ করছে সিপিএমের গণ সংগঠনগুলি।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা যুদ্ধে মৃত দের শহিদ আখ্যা দিল সিপিএম। শহিদদের শ্রদ্ধা জানাতে রক্তদান কর্মসূচিও করা হল দলের পক্ষ থেকে৷ 'শহিদ' আখ্যা দেওয়ার জন্য বিশেষ কোনও সংজ্ঞা না থাকলেও প্রচলিত প্রথা অনুযায়ী দেশের জন্য যুদ্ধক্ষেত্রে প্রাণ দিলেই শহিদের সম্মান দেওয়া হয়৷ রাজনৈতিক ভাবে মৃত্যু হলেও দলীয় কর্মী- সমর্থকদের 'শহিদ' সম্মান জানায় রাজনৈতিক দলগুলি। সেই প্রচলিত প্রথা ভেঙে করোনা যুদ্ধে মৃতদের শহিদ তকমা দিল সিপিএম। শহিদদের সম্মান দিতে করা হল রক্তদান শিবির। রবিবার উত্তর কলকাতার নলিন সরকার স্ট্রিটে মানিকতলা এরিয়া কমিটির উদ্যোগে এই কর্মসূচি করা হল দলের পক্ষ থেকে৷

সিপিএমের মানিকতলা এরিয়া কমিটির নেতা চন্দন চট্টোপাধ্যায় বলেন, "করোনা পরিস্থিতি শুরু হওয়ার সময় থেকে মানুষ আতঙ্কিত। লকডাউন করে দেওয়া হয়েছিল সংক্রমণ ঠেকাতে। কিন্তু সামনে থেকে লড়াই চালিয়ে গিয়েছেন স্বাস্থ্য কর্মী, সাফাই কর্মীদের পাশাপাশি জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত মানুষ। এদেরকেই করোনা যোদ্ধা বলা হয়। প্রথম দিকে পিপিই-সহ অন্যান্য জিনিসের অভাব থাকলেও জীবনের ঝুঁকি নিয়েই মানুষকে পরিষেবা দিয়ে গিয়েছেন তাঁরা। কাজ করতে করতেই সংক্রমিত হয়ে গিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে অনেকের মৃত্যু হয়েছে। যুদ্ধে প্রাণ হারানো করোনা যোদ্ধাদের শহিদের সম্মান প্রাপ্য।"

সিপিএমের কলকাতা জেলা সম্পাদক কল্লোল মজুমদার বলেন, "করোনা পরিস্থিতিতে সামনে থেকে মোকাবিলা করেছেন ডাক্তার, স্বাস্থ্য কর্মী, পুলিশ, সাফাই কর্মী, সাংবাদিকেরা। তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন। কার জন্য লড়েছেন? মানুষের জন্য। তাই এই শহিদদের সম্মান জানাচ্ছি আমরা। আগামী দিনে আরও কর্মসূচি হবে শহিদদের সম্মান জানাতে।"

কিন্তু কেন এই শহিদ স্মরণ? রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশের মতে, লকডাউনে পরিযায়ী শ্রমিকদের পাশে থাকা থেকে শুরু করে ঘরবন্দি মানুষের মুখে খাবার জোগানো, লাগাতার কাজ করছে সিপিএমের গণ সংগঠনগুলি। আলিমুদ্দিন স্ট্রির দাবি, মানুষের পাশে থেকে জনগণের মন পেয়েছে দল। তাই, করোনা পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে, আরও বেশি করে মানুষের পাশে থাকার কৌশল। তৃণমূল বিজেপির সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে না গিয়ে, মানুষের পাশে থেকে রাজনৈতিক ফসল ঘরে তোলার চেষ্টা করছে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট।

Ujjal Roy

Published by: Debamoy Ghosh
First published: August 23, 2020, 10:22 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर