করোনা ভাইরাস

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

স্বস্তিদায়ক! শিলিগুড়ি-সহ পাহাড়ে নামল আক্রান্তের গ্রাফ

স্বস্তিদায়ক! শিলিগুড়ি-সহ পাহাড়ে নামল আক্রান্তের গ্রাফ

দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক এস পুন্নমবালাম জানান, হোম আইশোলেশনে সুস্থতার হার বাড়ছে। এটা একটা ভালো দিক।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: করোনা গ্রাফ অবশেষে নামল। মঙ্গলবার সন্ধেয় করোনা বুলেটিন প্রকাশ পেতেই দুশ্চিন্তা অনেকটাই কমল উত্তরের শহরবাসীর। তবে এই তথ্য হাতে পেতেই কেউ লকডাউন ভেঙে বাইরে না বেড়িয়ে গেলে আবার উলটো ফল পেতে হবে।

গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্তের গ্রাফ উত্তরে এক ধাক্কায় অনেকটাই কমেছে। যা যথেষ্টই স্বস্তিদায়ক। স্বস্তি বাড়িয়েছে স্বাস্থ্য কর্তাদেরও। তাঁদের কথায় লকডাউন মেনে চললে নিজে নিজেই সংক্রমণের হার কমিয়ে আনবে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে হবে। নইলে সমূহ বিপদ!

রাজ্যজুড়ে কড়া লকডাউন মানার পাশাপাশি জেলাস্তরে যে লকডাউন চলছে তাও মেনে চলার পরামর্শ প্রশাসনিক কর্তা থেকে বিশিষ্ট চিকিৎসকদের। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে বাজারে লম্বা ভিড়। একজনের ঘাড়ে আরেকজন নিঃশ্বাস ফেলছেন! বাজারে ভিড় না কমালে সংক্রমণের গ্রাফও নামবে না!

গত ২৪ ঘন্টায় শিলিগুড়ি পুরসভা ও দার্জিলিং জেলা মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৩২ জন! যথেষ্টই স্বস্তিদায়ক খবর বটে! এর মধ্যে পুর এলাকায় ২৮ জন! গত ৩ দিনে যেখানে গড়ে ৮০ জন করে আক্রান্তের খবর আসছিল। শিলিগুড়ি মহকুমার ফাঁসিদেওয়ায় একজনের লালা রসের রিপোর্ট পজিটিভ এসছে। এছাড়া পাহাড়ে নতুন করে সংক্রমিত ৩ জন। এর মধ্যে দার্জিলিংয়ে ২ জন। কার্শিয়ংয়ে আক্রান্ত এক স্বাস্থ্যকর্মী, কার্শিয়ং মহকুমা হাসপাতালে কর্তব্যরত।

কী ভাবে তাঁরা আক্রান্ত হলেন তা খতিয়ে দেখছে স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্তারা। মঙ্গলবার ২ আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে। ২ জনেই পুরসভার ৩১ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। এর মধ্যে এক জনের ছেলেও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান দিন দুয়েক আগে। যদিও স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারীকদের দাবি, বেশীরভাগ মৃত্যুই হচ্ছে কো-মর্বিডিটতে। এই হারটাও কমানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে।

মঙ্গলবার আক্রান্তের গ্রাফ নিম্নমুখী হওয়ার পাশাপাশি সুস্থ হয়ে ঘরে ফেরার তালিকাটাও যথেষ্টই আশাব্যঞ্জক। আজ শিলিগুড়ির কোভিড হাসপাতাল থেকে ৪৭ জন করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়ে ঘরে ফিরেছেন। যা সদর্থক ইঙ্গিতই বহন করছে। সেইসঙ্গে হোম আইশোলেশনেও সুস্থ হয়ে উঠছেন অনেকেই। আজ নতুন করে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১১ জন! গতকালও সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন অনেকেই। দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক এস পুন্নমবালাম জানান, হোম আইশোলেশনে সুস্থতার হার বাড়ছে। এটা একটা ভালো দিক।

Published by: Arka Deb
First published: July 29, 2020, 8:47 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर