corona virus btn
corona virus btn
Loading

COVID-19: হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ড আর স্যানিটাইজার তৈরি করে লড়াইয়ে রেল

COVID-19: হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ড আর স্যানিটাইজার তৈরি করে লড়াইয়ে রেল

হাসপাতালে ভেন্টিলেটর, নেবুলাইজার, বাইপ্যাপ সহ সমস্ত আধুনিক ব্যবস্থা রাখা থাকছে।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা যুদ্ধে এবার সামিল রেল। রেলের বিভিন্ন হাসপাতালে তৈরি করা হল আইসোলেশন ওয়ার্ড। রেল মন্ত্রকের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তাদের বিভিন্ন হাসপাতালে তৈরি করে ফেলা হবে আইসোলেশন ব্লক। যে সমস্ত রেল হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি করা হল, সেগুলি হল শিয়ালদহ বি আর সিং হাসপাতাল, হাওড়া অরথোপেডিক হাসপাতাল, আসানসোল হাসপাতাল, লিলুয়া, কাঁচড়াপাড়া রেল হাসপাতাল, আদ্রা, খড়্গপুর ও বি এন আর হাসপাতাল।

পূর্ব রেলের বি আর সিং হাসপাতাল রেলের অন্যতম বড় হাসপাতাল। সেখানে প্রায় ৫০টি বেড রাখা হয়েছে আইসোলেশন ওয়ার্ড এর জন্য। এছাড়া বাকি হাসপাতালগুলিতে প্রায় ২০টি করে বেড রাখা হয়েছে।পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক নিখিল চক্রবর্তী জানান, "দেশের মানুষ একটা লড়াই করছে। রেল তার পরিকাঠামো ব্যবহার করে হাসপাতালগুলিতে জরুরি ভিত্তিতে এই আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি করেছে। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা  প্রস্তুত আছেন যে কোনও ধরণের পরিষেবা দেওয়ার জন্য।"

এই সমস্ত হাসপাতালে ভেন্টিলেটর, নেবুলাইজার, বাইপ্যাপ সহ সমস্ত আধুনিক ব্যবস্থা রাখা থাকছে। পূর্ব রেলের চার ডিভিশন হাওড়া, শিয়ালদহ, আসানসোল ও মালদা ডিভিশন পুরোপুরি ভাবে তৈরি করা হয়েছে। একইভাবে প্রস্তুত হয়ে আছে দক্ষিণ পূর্ব রেল। দক্ষিণ পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক সঞ্জয় ঘোষ জানান, "যুদ্ধকালীন তৎপরতায় আমরা প্রস্তুত করেছি সবকিছু। এছাড়া হোম কোয়ারেনটাইন তৈরি করে ফেলা হয়েছে।" খড়্গপুর ডিভিশন-সহ দক্ষিণ পূর্ব রেলের বাকি ডিভিশনগুলি প্রতিনিয়ত এব্যপারে নজরদারি চালাচ্ছে।

আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশে যাত্রীবাহী রেল চলাচল বন্ধ থাকলেওযে সমস্ত ট্রেনে করে পণ্যসরবরাহ করা হচ্ছে তার জন্য রেলের কর্মীরা সচল আছেন। লাইন মেরামতি থেকে সিগন্যাল টেলিকমিউনিকেশন সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা কাজ করছেন। ফলে এই সমস্ত ট্রেনেও শুরু হয়ে গেছে ইঞ্জিন স্যানিটাইজেশনের কাজ।প্রতিদিন কর্মীরা জীবাণুনাশক ভাইরাক্স দিয়ে ইঞ্জিন পরিষ্কার করছেন। এছাড়া বিভিন্ন বগি ও যে সমস্ত অফিস ব্যবহার হচ্ছে তাও পুরোপুরি স্যানিটাইজ করে দেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে রেলের কাঁচড়াপাড়া, লিলুয়া, অন্ডাল, জামালপুর ওয়ার্কশপে রেলের কর্মীরাই তৈরি করে ফেলেছেন স্যানিটাইজার। যেহেতু রেলের স্টাফেদের আগামী দিনে এই স্যানিটাইজার প্রয়োজন হয়ে পড়বে তাই তারা দ্রুত এই জিনিস তৈরি করছেন।

Abir Ghoshal

First published: March 27, 2020, 9:39 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर