নতুন করে বেলেঘাটা আইডিতে ৮ জন ভর্তি, জানুন কেমন আছেন রোগীরা

নতুন করে বেলেঘাটা আইডিতে ৮ জন ভর্তি,  জানুন কেমন আছেন রোগীরা
ভিড় বাড়ছে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে

এখন বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে যে ক'জন ভর্তি, তাঁদের মধ্যে রয়েছেন ইংল্যান্ড ফেরত কলকাতার আলিপুর এর বাসিন্দা। রাজ্য স্বরাষ্ট্র দফতরের এক যুগ্ম সচিবের পুত্র এক তরুণকেও বিশেষভাবে পর্যবেক্ষন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চিকিৎসকরা।

  • Share this:

#কলকাতা‍: নতুন করে আটজনকে করোনা পরীক্ষার জন্য ভর্তি করা হল বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালের মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত করোনা সন্দেহে আইডিতে ভর্তি রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ১১ জন। যদিও এদের মধ্যে ৩ জনের সোয়াব বা লালা রসের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। অর্থাৎ এরা কেউই করোনা আক্রান্ত নন। এছাড়াও বেশ কয়েকজনকে পর্যবেক্ষণের জন্য রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা একটা নাগাদ কলকাতার বাসিন্দা ৩২ বছর বয়সি এক যুবতীকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে আনা হয়। সিঙ্গাপুর থেকে চট্টগ্রাম হয়ে কলকাতাগামী জাহাজের ক্যাপ্টেন ওই যুবতী। কয়েকদিন আগে শ্রীলঙ্কার কলম্বোতে ছুটি কাটিয়ে জাহাজ যোগ দেন তিনি। এই জাহাজেই তার সঙ্গেই ছিলেন চিন, দক্ষিণ কোরিয়া,মায়ানমার,ইন্দোনেশিয়ার বেশ কয়েকজন নাবিক। জ্বর,সর্দি,কাশির মতো করোনা উপসর্গ থাকায় কলকাতা বন্দর থেকেই তাকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। সেখানকার জরুরি বিভাগের চিকিৎসকরাও তরুণীকে পর্যবেক্ষণ করে দ্রুত তাঁকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করে। আজই তাঁর লালারস নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে।

এখন বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে যে ক'জন ভর্তি, তাঁদের মধ্যে রয়েছেন ইংল্যান্ড ফেরত  কলকাতার আলিপুর এর বাসিন্দা।  রাজ্য স্বরাষ্ট্র দফতরের এক যুগ্ম সচিবের পুত্র এক তরুণকেও বিশেষভাবে পর্যবেক্ষন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চিকিৎসকরা। এই তরুণের জ্বর, শ্বাসকষ্ট রয়েছে। গত কয়েক দিন সুইজারল্যান্ড থেকে আসা গার্ডেনরিচের  বাসিন্দা এক যুবককে নিয়ে যথেষ্টই উদ্বিগ্ন ছিল চিকিৎসকরা। তবে তাঁর নমুনার রিপোর্ট নেগেটিভ আশায় হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন প্রত্যেকে।

করোনা প্রতিরোধে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে সমস্ত রকম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। করোনা ভাইরাস নিয়ে সচেতনতামূলক বার্তা দেওয়া হচ্ছে প্রতিনিয়ত। রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তী জানিয়েছেন, এ রাজ্যে এখনও কেউ করোনা আক্রান্ত হননি, তবে তা নিয়ে আত্মতুষ্টির কোন জায়গা নেই। স্বাস্থ্য দফতরের প্রত্যেক কর্মী সতর্ক এবং সচেতন রয়েছেন।সরকারি হাসপাতালগুলোর সঙ্গে বেসরকারি হাসপাতাল,নার্সিংহোম গুলোকেও সতর্ক করা হয়েছে। মানুষ যেন অযথা আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকে তার বার্তাও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

First published: March 17, 2020, 7:14 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर