করোনা ভাইরাস

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

পাহাড়ে ফের বাড়তে চলেছে লকডাউনের মেয়াদ? এমনই ইঙ্গিত জিটিএ–এর

পাহাড়ে ফের বাড়তে চলেছে লকডাউনের মেয়াদ? এমনই ইঙ্গিত জিটিএ–এর

এদিকে শিলিগুড়ি শহর লাগোয়া ডাবগ্রাম ১ ও ২ এবং ফুলবাড়ি ১ ও ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাতেও টানা ১০০ ঘন্টার লকডাউন চলছে।

  • Share this:

#‌শিলিগুড়ি:‌ পাহাড়ে কি বাড়তে চলেছে লকডাউনের মেয়াদ? সোমবার জিটিএ'র চেয়ারম্যান তেমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন। গতকাল কার্শিয়ংয়ের চিমনিতে আক্রান্ত এক বাসিন্দার মৃত্যু হয়। যা উদ্বেগ বাড়িয়েছে পাহাড়কে। দার্জিলিং জেলায় এই প্রথম এক আক্রান্তের মৃত্যু হল। এর আগে কালিম্পংয়ের এক আক্রান্ত মহিলার মৃত্যু হয়। উত্তরবঙ্গের প্রথম আক্রান্তের মৃত্যু হয় কালিম্পংয়ে। মাঝে পাহাড় কার্যত কোভিড ফ্রি হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু দেশের বিভিন্ন প্রান্ত এবং বিদেশে আটকে থাকা মানুষেরা পাহাড়ে ফিরতেই ফের সংক্রমণ বাড়ছে। প্রতিদিনই আক্রান্তের খোঁজ মিলছে দার্জিলিং, কার্শিয়ং, কালিম্পং এবং মিরিকের পুরসভা ও গ্রামীন এলাকায়। মোকাবিলায় রবিবার থেকে পাহাড়ের চার পুরসভা এবং পাঁচটি গ্রামীন বাজার এলাকায় শুরু হয়েছে টানা সাতদিনের লকডাউন। এবারে কার্শিয়ংয়ের চিমনির এক আক্রান্ত বাসিন্দার মৃত্যুর পর উদ্বিগ্ন জিটিএ।

সোমবার মৃতের পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানাতে চিমনি যান জিটিএ'র চেয়ারম্যান অনীত থাপা। তিনি জানান, ক্রমেই মারণ করোনা ভাইরাস জাল ছড়াচ্ছে। এই সময়ে পাহাড়বাসীকে আরও বেশী সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে। প্রতিদিনই আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। যা ভাবাচ্ছে। পরিস্থিতির ওপর নজর রাখা হচ্ছে। প্রয়োজনে লকডাউনের মেয়াদ আরও বাড়ানো হবে। পাহাড়কে "নো কোভিড" জোন হিসেবে তুলে ধরতে হবে। এটাই এখন মূল প্রাধান্য।

এদিকে শিলিগুড়ি শহর লাগোয়া ডাবগ্রাম ১ ও ২ এবং ফুলবাড়ি ১ ও ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাতেও টানা ১০০ ঘন্টার লকডাউন চলছে। কিন্তু সকালে এলাকার বাজারের ছবি উল্টো কথা বলছে। থিকথিকে ভিড়। লকডাউন চলছে কি? দেখে বোঝার উপায় নেই। না ছিল সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিং! না স্বাস্থ্য বিধি! তবে বেলা বাড়তেই অতিসক্রিয় হয়ে ওঠে এনজেপি থানার পুলিশ। খোলা থাকা দোকানের শাটার নামিয়ে দেয় পুলিশ। চলে ধরপাকড়। শহরের মতো এই চার গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাতেও হুঁশ ফেরেনি স্থানীয় বাসিন্দাদের একটা অংশের। আর স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চললে সংক্রমণের গ্রাফও নামার সম্ভাবনা কম বলে দাবী চিকিৎসকদের।

Partha Sarkar

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: July 28, 2020, 8:51 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर