corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা যুদ্ধে কিভাবে হবে জয়? মজার ছলে শেখাবে খুদে পড়ুয়ারা, অভিনব হোমটাস্ক লকডাউনে

করোনা যুদ্ধে কিভাবে হবে জয়? মজার ছলে শেখাবে খুদে পড়ুয়ারা, অভিনব হোমটাস্ক লকডাউনে

কনটেস্ট থেকে বেছে নেওয়া হবে সেরা ভিডিও গুলো। যা ছাড়া হবে সোশ্যাল সাইটে, ইউটিউবে। ট্যুইট করা হবে রাজ্যের শিশুকল্যাণ দফতরের মন্ত্রী শশী পাঁজা এবং রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী সোশ্যাল সাইট অ্যাকাউন্টে তা সংযুক্ত করা হবে।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা যুদ্ধে জয় সম্ভব!  হ্যাঁ সম্ভব।  কীভাবে?  এই প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে অভিনব হোমটাস্ক পড়ুয়াদের। তাই পড়াশোনার ফাঁকে করোনা সচেতনতা নিয়ে মজার মজার ভিডিও বানানোর কনটেস্ট। কনটেস্ট থেকে বেছে নেওয়া হবে সেরা ভিডিও গুলো।  যা ছাড়া হবে সোশ্যাল সাইটে, ইউটিউবে।  ট্যুইট করা হবে রাজ্যের শিশুকল্যাণ দফতরের মন্ত্রী শশী পাঁজা এবং রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী  সোশ্যাল সাইট অ্যাকাউন্টে তা সংযুক্ত করা হবে। প্রধানমন্ত্রী এবং মুখ্যমন্ত্রীর সোশ্যাল সাইটেও সংযুক্ত হবে পড়ুয়াদের তৈরি অভিনব ভাবনার ভিডিওগুলি।

লিলুয়া এমসিকেভি স্কুুলের পড়ুয়ারা এমন হোমটাস্ক পেয়ে বেজায় খুশি। ক্লাস ওয়ান, টু, থ্রি,  ফোর, ফাইভে'র পড়ুয়ারা  নিজেদের মত করে বানিয়ে ফেলেছে করোনা যুদ্ধের সচেতনতার বার্তা জড়ানো  এক একটি আস্ত মজার ভিডিও। সামাজিক দূরত্ব,  হাতধোয়া, ফুসফুস শক্তিশালী করা, রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর নানা কনসেপ্ট ওপর তৈরি  ভিডিও গুলি ভাবতে বাধ্য করবেই । আশা করছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।  আর উৎসাহ আরও বাড়িয়ে দিতে  শিক্ষকরাও গান গেয়েছেন উই শ্যাল ওভারকাম সুরে সুর মিলিয়ে।  করোনাকে জয় করার গান,  উই শ্যাল ওভারকাম করোনা...তারও তৈরি হলো ভিডিও।

কী কী থাকছে ভিডিও গুলিতে ? ক্লাস থিয়ের ছোট্ট ছেলেটির এক হাতে মাংকি। অন্য হাতে টেডি। তারা নাকি হাতাহাতি করছে। এক ধমকে তাদের ছোটা মালিক বলছে তফাৎ যাও। সামাজিক দূরত্বের ভাবনা থেকে তৈরি ভিডিও। আবার, ক্লাস ফোরের পড়ুয়া  আরও একটু সৃজনশীল। হাতের পাঁচ আঙুলের নখের ওপর মুখ এঁকেছে। কিছুতেই তাদের আলাদা করা যাচ্ছে না। তখন আঙুলের ফাঁকে ফাঁকে দেশলাইয়ের কাঠি ঢুকিয়ে সোশ্যাল ডিসটেন্স ভিডিও বানিয়েছে সে। কেউ কেউ জাঙ্কফুড না খাওয়ারও শপথ করছেন।

অনলাইনে স্কুল। মানে সেই মোবাইল। এই স্কুলের আবার কোনো বাঁধা ধরা সময় নেই। একেই বাইরে বেরোনোর উপায় নেই। তাতে আবার মোবাইলে একগাদা টাস্ক। বোরিং। মনোবিদরা বলছেন, ঘাড় গুঁজে একঘেয়ে কাজ হিতে বিপরীত হতে পারে।  স্কুলের মজার মজার ভিডিও বানানোর কনটেস্টে বেজায় খুশ  শিশুরা। এমনকি বাবা-মারাও।পিটি টিচার আবার শেখাচ্ছেন মাস্ক থেকে যাতে শ্বাসের  সমস্যা থেকে বিরত থাকা যায় তারও এক্সারসাইজ। সব মিলিয়ে অভিনব ভাবনায় করোনা যুদ্ধ মোকাবিলায় সহায়ক হতে পড়ুয়াদের এই উদ্যোগ।

Arnab Hazra

Published by: Elina Datta
First published: April 26, 2020, 4:56 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर