‘দেশ করোনার মতো সাংঘাতিক বিপদের সম্মুখীন, এখন লোক হাসানো বন্ধ করুন’, প্রধানমন্ত্রীকে ট্যুইটে কটাক্ষ রাহুলের

রাহুল গান্ধি৷ PHOTO- FILE

একজন সত্যিকারের নেতার দেশের এমন আপৎকালীন পরিস্থিতিতে সমস্ত মনোযোগ শুধু বিপদকে কি করে কাটানো যায় সেদিকে দেওয়া উচিত,বলেন রাহুল

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: যা ভয় ছিল তাই সত্যি হল ৷ শত সতর্কতা সত্ত্বেও ভারতে ঢুকে পড়ল করোনা ভাইরাস ৷ দিল্লি ও বেঙ্গালুরুতে Covid-19-এ আক্রান্তের ঘটনা সামনে আসার পর ট্যুইটে প্রধানমন্ত্রী মোদিকে কটাক্ষ রাহুলের ৷ একজন সত্যিকারের নেতার দেশের এমন আপৎকালীন পরিস্থিতিতে সমস্ত মনোযোগ শুধু বিপদকে কি করে কাটানো যায় সেদিকে দেওয়া উচিত ৷ এই মুহূর্তে এমন ভাইরাসের থাবা ভারতে ৷ শুধু দেশের নাগরিকদের স্বাস্থ্যেই নয়, এর প্রভাব পড়তে চলেছে অর্থনীতিতেই ৷

    সোমবার রাত থেকেই প্রধানমন্ত্রীর ট্যুইট নিয়ে সরগরম সোশ্যাল মিডিয়া ৷ মোদির ট্যুইটে জল্পনা ছড়ায় সোশ্যাল মিডিয়া ছাড়ছেন প্রধানমন্ত্রী ৷ কিন্তু পরে মঙ্গলবার ট্যুইট করে সেই বিষয়টি নিজেই পরিষ্কার করেন তিনি ৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ট্যুইট করেন, ‘তিনি একদিনের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া ছাড়তে চাইছেন৷ আর সেটি নারী দিবস উপলক্ষে৷ এদিন ট্যুইটারে তিনি লিখলেন, ‘এই ‘নারী দিবসে’ আমি আমার সব সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট উৎসর্গ করলাম সেই সব নারীদের, যাঁদের জীবন আর কাজ আমাদের অনুপ্রাণিত করেছে৷ এর ফলে লক্ষ লক্ষ মহিলার মধ্যে নতুন করে আরও কাজের উৎসাহ বাড়বে৷ আপনিও কি এমন একজন মহিলা, যিনি অনুপ্রেরণা হয়ে উঠতে পারেন? বা এমন কাউকে চেনেন যাঁর কাজ অনুপ্রেরণা জোগায়? তাহলে আমাদের সঙ্গে ভাগ করে নিন৷’ প্রধানমন্ত্রীর এমন ট্যুইটের পরই রাহুল গান্ধির নিশানায় মোদি ৷ তাঁর এই উদ্যোগকে কটাক্ষ করে রাহুল লেখেন, ‘সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট নিয়ে লোক হাসিয়ে দেশের সময় নষ্ট করা বন্ধ করুন ৷ বিশেষত গোটা দেশ যখন করোনার মত ভয়ঙ্কর বিপদের সম্মুখীন ৷’ এর আগেও করোনা ভাইরাস নিয়ে কেন্দ্র কী ব্যবস্থা নিচ্ছে সেই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন রাহুল গান্ধি ৷ গত ১২ ফেব্রুয়ারি রাহুল বলেছিলেন, মোদি সরকার করোনা নিয়ে যথেষ্ট সতর্ক নয় ৷ এদিনই দিল্লি ও বেঙ্গালুরুতে দু’জনের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা সামনে এসেছে ৷ এছাড়াও সন্দেহজনক রোগীর তালিকাতেও রয়েছেন অনেকে ৷
    Published by:Elina Datta
    First published: