corona virus btn
corona virus btn
Loading

আতঙ্কের নাম করোনা ! সর্দি-কাশি হলেই ‘আইসোলেশন’, হাসপাতালে এলেই জ্বর পরীক্ষা

আতঙ্কের নাম করোনা ! সর্দি-কাশি হলেই ‘আইসোলেশন’, হাসপাতালে এলেই জ্বর পরীক্ষা
Representational Image

বেশির ভাগ রোগীকেই নাকি ফিরিয়ে দিচ্ছে ফিভার ক্লিনিক

  • Share this:

#কলকাতা: সর্দি-কাশি নিয়ে এলেই আইসোলেশন ওয়ার্ড। কিংবা আউটডোরে আসা সব রোগীকেও ফিভার ক্লিনিকে জ্বর পরীক্ষার নিদান। কোনও ছবি কলকাতার এনআরএসের, কোনওটা বাঁকুড়া মেডিক্যালের। মা্লদা মেডিক্যালে শুধু জ্বর নিয়ে আসা রোগীদের জন্য চালু হচ্ছে ফ্লু ক্লিনিক। কেউ এসেছেন হাড়ের সসমস্যা নিয়ে, কেউ হার্টের। কিন্তু এনআরএসের আউটডোরে যাঁরাই যাচ্ছেন, তাঁদেরই পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে ফিভার ক্লিনিকে। ওখানকার পরীক্ষার রিপোর্ট দেখালেই আউটডোরের ডাক্তার দেখছেন। কিন্তু বেশির ভাগ রোগীকেই নাকি ফিরিয়ে দিচ্ছে ফিভার ক্লিনিক। হয়রানি রোগীদের। বাঁকুড়ার হাসপাতালগুলিতেও আরও ভয়ঙ্কর কাণ্ড। জেলার বিভিন্ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও ব্লক হাসপাতালে সর্দি কাশির রোগী এলেই তাঁকে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের আইসোলেশন ওয়ার্ডে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

জেলার বিভিন্ন হাসপাতালের ৫৬ আইসোলেশন ওয়ার্ড ফাঁকা পড়ে। কিন্তু বাঁকুড়া সম্মিলনীর আইসোলেশন ওয়ার্ডে জায়গা নেই। করোনা আক্রান্ত কোনও রোগী এলে, তাঁর চিকিৎসা কোথায় হবে, তা নিয়ে চিন্তায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। উল্টো ছবি মালদহ মেডিক্যালে। করোনা সতর্কতায় শুক্রবার থেকে চালু হচ্ছে "ফ্লু কর্নার"। শুধুমাত্র জ্বর ও সর্দি কাশির রোগীদের জন্য একেবারে আলাদা বিভাগ। থাকবেন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ও নার্স। মজুত থাকবে প্রয়োজনীয় ওষুধ, ওআরএস। কারও করোনার উপসর্গ ধরা পড়লেই আলাদা ব্যবস্থা। কলকাতা বা জেলা। বিভিন্ন হাসপাতালে করোনা আতঙ্কে ভুগছেন চিকিৎসকরাই। সাধারণ মানুষের ভয় ভাঙাবে কে?

First published: March 19, 2020, 11:19 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर