• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • বাড়ির সামনে পড়ে রয়েছে করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ, ২ ঘণ্টা পর পৌঁছল অ্যাম্বুল্যান্স, ভাইরাল ভিডিও

বাড়ির সামনে পড়ে রয়েছে করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ, ২ ঘণ্টা পর পৌঁছল অ্যাম্বুল্যান্স, ভাইরাল ভিডিও

শুক্রবার নিজের বাড়িতেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৫৫ বছরের এক ব্যক্তি।

শুক্রবার নিজের বাড়িতেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৫৫ বছরের এক ব্যক্তি।

শুক্রবার নিজের বাড়িতেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৫৫ বছরের এক ব্যক্তি।

  • Share this:

    #বেঙ্গালুরু: শ্বাসকষ্ট বাড়ছিল ক্রমেই। তাই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য পরিবারের সদস্যরা অ্যাম্বুল্যান্সে খবর দেন। তাঁকে ধরে ধরে বাইরেও নিয়ে যাওয়া হয়।  কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। অ্যাম্বুল্যান্স এসে পৌঁছনোর আগেই মারা যান তিনি। এরপরের ঘটনা শুনে আঁতকে উঠবেন যে কেউ।

    শুক্রবার নিজের বাড়ির সামনে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান ৫৫ বছরের ওই ব্যক্তি। জানা গিয়েছে, হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য বাইরে বার করলে মারা যান তিনি। ফলে মৃত্যুর পর রাস্তার উপরেই শুইয়ে সাদা কাপড়ে ঢেকে রাখা হয়েছিল ব্যক্তির দেহ। পাশেই দাঁড়িয়েছিলেন তাঁর আত্মীয়েরা। কারণ ২ ঘণ্টা পরে অ্যাম্বুল্যান্স এসে পৌঁছয় বৃদ্ধের বাড়িতে। অমানবিক ঘটনাটি ঘটেছে বেঙ্গালুরুতে।

    মৃতের স্ত্রী জানিয়েছেন, স্বামীর শ্বাসকষ্টের সমস্যা ছিল। বাড়িতেই তাঁর চিকিৎসা চলছিল। এরপর তাঁর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ফলে শারীরিক অবস্থা আরও খারাপ হতে শুরু করে। শুক্রবার ঠিক হয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে ওই ব্যক্তিকে। সেই মতোই অ্যাম্বুলেন্সে খবর দেন তাঁরা। কিন্তু অ্যাম্বুল্যান্স আসতে দেরি হওয়ায় তাঁরা ঠিক করেন অন্য কোনও গাড়িতে করে ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে যাবেন। কিন্তু বাড়ির বাইরে বের করতেই মারা যান তিনি।

    পরিবারের অভিযোগ, অ্যাম্বুল্যান্সে ফোন করার ২ ঘণ্টা পরে অ্যাম্বুল্যান্স আসে। দেরির কারণ হিসেবে চালক জানান, রাস্তায় ট্রাফিক ছিল। এ দিকে ঘটনাটি ভিডিও করে নেন স্থানীয় কেউ। তিনি সেটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করলে তা নিমেষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। সমালোচনার ঝড় ওঠে বিভিন্ন মহলে।

    করোনা মোকাবিলার দায়িত্বে থাকা মন্ত্রী আর অশোক জানিয়েছেন, ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে। গাফিলতির প্রমাণ মিললে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অন্যদিকে, বেঙ্গালুরু মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের কমিশনার অনিল কুমার এই ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।
    Published by:Shubhagata Dey
    First published: