corona virus btn
corona virus btn
Loading

রোগী করোনা আক্রান্ত, বার করে দেওয়া হল ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট থেকে! অক্সিজেন না পেয়ে মৃত্যু

রোগী করোনা আক্রান্ত, বার করে দেওয়া হল ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট থেকে! অক্সিজেন না পেয়ে মৃত্যু
Photo- Representative

রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য৷

  • Share this:

#রামপুরহাট: ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট এর বাইরে প্রায় এক ঘন্টা অক্সিজেন না পেয়ে ছটফট করল রোগী।অভিযোগ দায়ের থানায়,একের পর এক অভিযোগে বিদ্ধ কলকাতা সহ রাজ্যের বেশ কিছু মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। আজ রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে উঠে এসেছে বেশকিছু গুরুতর অভিযোগ।

রাতে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করার পর  রিপোর্ট পজিটিভ পরিবারকে না জানিয়ে সকাল ১১ টায় পরিবারকে পজিটিভ জানায়।যেখানে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট মাধ্যমে কম সময়ে করোনা রোগীদের শনাক্তকরণ যায় তাহলে এত দেরি কেন সেই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন।হাসপাতালের ক্রিটিকাল কেয়ার ইউনিট থেকে রোগীকে বের করে দেবার অভিযোগ বিনা অক্সিজেন দিয়ে। অ্যাম্বুলেন্স চালক এর বিরুদ্ধে উঠেছে মারাত্মক অভিযোগ অক্সিজেন না দিয়েই কোভিড হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া হয়েছে। রামপুরহাটে কোভিড হাসপাতালে দুপুর১২ টা ৩০ মিনিটে নিয়ে গেলে মৃত্যু হয় রোগীর।

গতকাল রাত্রি নটা নাগাদ নলহাটি থানার বুজুং গ্রামের জিবন্তী মাল(২৮) গর্ভবতী অবস্থায় শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হন রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে সকাল ১০ টা নাগাদ পরিবারকে জানানো হয় মৃত পুত্র সন্তানের জন্ম হয়েছে। ঠিক তার এক ঘন্টা পর সকাল ১১ টা নাগাদ আবার জানানো হয় রোগীর অবস্থা ভালো নেই করোনা আক্রান্ত হয়েছে রোগী৷  ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট থেকে বের করে দেয়া হয় রোগীকে৷  প্রায় এক ঘণ্টা ধরে অক্সিজেনের অভাবে ছটফট করেন৷

অ্যাম্বুলেন্স চালককে অক্সিজেন দিতে পারলেও অ্যাম্বুলেন্স চালক অক্সিজেন না দিয়েই কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করেন সঙ্গে সঙ্গে মৃত্যু হয় সেই রোগীর। ঘটনার তদন্ত চেয়ে রোগীর পরিবার রামপুরহাট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অভিযোগ দায়ের করেন ঘটনার তদন্ত চেয়ে ও দোষী স্বাস্থ্যকর্মীদের শাস্তি চেয়ে । রামপুরহাট স্বাস্থ্য জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক রবীন্দ্রনাথ প্রধান জানান তিনি অভিযোগ পেয়েছেন সমস্ত বিষয়টি তদন্ত করে দেখবেন এছাড়াও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে সঠিক ঘটনা উদ্ঘাটন করবেন।

Akshay Dhibar

Published by: Debalina Datta
First published: August 31, 2020, 8:30 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर