Coronavirus: এই রাজ্যে মাস্ক না পরলেই যেতে হবে জেলে!

জনবহুল এলাকায় মাস্ক পরা এবার বাধ্যতামূলক করল তেলঙ্গানা সরকার। রাজ্যজুড়ে সমস্ত রাস্তা, বাস-ট্রেন এবং অফিসে মাস্ক পরে থাকতেই হবে।

জনবহুল এলাকায় মাস্ক পরা এবার বাধ্যতামূলক করল তেলঙ্গানা সরকার। রাজ্যজুড়ে সমস্ত রাস্তা, বাস-ট্রেন এবং অফিসে মাস্ক পরে থাকতেই হবে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: দেশজুড়ে ফের ভয়ানক রূপ নিয়েছে করোনাভাইরাস। সংক্রমণকে আটকানোর জন্য বিভিন্ন রাজ্যেই ফের শক্ত হচ্ছে প্রশাসন। এবার তেলঙ্গানা সরকারও রাজ্যে করোনা ঠেকাতে নতুন নির্দেশিকা জারি করেছে। জনবহুল এলাকায় মাস্ক পরা এবার বাধ্যতামূলক করল তেলঙ্গানা সরকার। রাজ্যজুড়ে সমস্ত রাস্তা, বাস-ট্রেন এবং অফিসে মাস্ক পরে থাকতেই হবে। নয়তো ভারতীয় দণ্ডবিধির ৫১ ও ৬০ নম্বর বিপর্যয় মোকাবিলা আইনের ধারায় মামলা করা হবে। আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত কোনও রকম জমায়েত বা অনুষ্ঠানেরও অনুমতি দেয়নি প্রশাসন।

    কয়েকদিনের মধ্যেই তেলগু নতুন বছরের অনুষ্ঠান আসতে চলেছে তেলঙ্গানায়। রয়েছে বেশ কয়েকটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানও। তালিকায় রয়েছে শব-এ-বরাত, হোলি, উগাদি, রামনবমী, মহাবীর জয়ন্তী, গুড ফ্রাইডে, রমজান ও অন্য অনুষ্ঠান। তবে করোনার বাড়বাড়ন্তের কারণে কোনও অনুষ্ঠানই করা হবে না। রাজ্যের মুখ্য সচিব সোমেশ কুমার জানিয়েছেন, পরিস্থিতি অনুযায়ী গত ২-৩ সপ্তাহেই সবচেয়ে বেশি খারাপ পরিস্থিতি দেখা যাচ্ছে। সে কারণে স্থানীয় ভাবে বহু জায়গায় লকডাউন ও কার্ফু জারি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

    দেশজুড়ে করোনার (Covid-19) দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হওয়ার পর থেকে প্রতিদিনই বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃতের সংখ্যা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশজুড়ে করোনায় সংক্রামিত হয়েছেন ৬২ হাজার ৭১৪ জন। গত পাঁচ মাসে এটাই সর্বোচ্চ সংক্রমণ বলে জানানো হয়েছে। গত ১৮ দিন ধরে ১.১৯ কোটি মানুষের করোনার সংক্রমণ হয়েছে। গত বছরের অক্টোবরে দেশজুড়ে ধরা পড়েছিল ৬৩ হাজার ৩৭১ জন।

    গত তিন মাসে মৃত্যুর সংখ্যাও এদিন সর্বাধিক। একদিনে দেশে করোনার জেরে মৃত্যু হয়েছে ৩১২ জনের। এখনও পর্যন্ত দেশে করোনার জেরে মৃতের সংখ্যা ১,৬১,৫৫২ জন। এই মুহূর্তে দেশে অ্যাক্টিভ করোনা রোগীর সংখ্যা একদিনে বেড়ে গিয়েছে ৩৩,৬৬৩ জন। মোট সংখ্যা ৪,৮৬,৩১০ জন। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ১.১৩ কোটি মানুষ। সুস্থতার হার কমেছে ৯৪.৫৮ শতাংশ। মৃতের হার রয়েছে ১.৩৫ শতাংশে।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: