Mumbai Coronavirus: ভয়াবহ করোনা-পরিস্থিতি, মুম্বইয়ে হাল্কা উপসর্গের রোগীদের চিকিৎসা হবে পাঁচতারা হোটেলে!

Mumbai Coronavirus: ভয়াবহ করোনা-পরিস্থিতি, মুম্বইয়ে হাল্কা উপসর্গের রোগীদের চিকিৎসা হবে পাঁচতারা হোটেলে!

ভয়াবহ করোনা-পরিস্থিতি, মুম্বইয়ে হাল্কা উপসর্গের রোগীদের চিকিৎসা হবে পাঁচতারা হোটেলে!

এই পরিস্থিতিতে মুম্বই পুর প্রশাসন পাঁচতারা হোটেলগুলিকে চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। স্বল্প বা হাল্কা উপসর্গের রোগীদের হাসপাতালে না রেখে, বরং পাঁচতারা হোটেলে (5 Star Hotels) রেখে চিকিৎসা করানোর সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে হাসপাতালগুলিকে।

  • Share this:

    #মুম্বই: দেশজুড়েই ভয়াবহ আকার ধারণ করেছেন করোনাভাইরাসের (Coronavirus) দ্বিতীয় ঢেউ। এর মধ্যে মহারাষ্ট্রের মুম্বইয়ের (Mumbai Covid-19) পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। হাসপাতালে কোনও জায়গা নেই আর, ভরে গিয়েছে করোনা (Corona) রোগী। এই পরিস্থিতিতে মুম্বই পুর প্রশাসন পাঁচতারা হোটেলগুলিকে চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। স্বল্প বা হাল্কা উপসর্গের রোগীদের হাসপাতালে না রেখে, বরং পাঁচতারা হোটেলে (5 Star Hotels) রেখে চিকিৎসা করানোর সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে হাসপাতালগুলিকে।

    হাসপাতালে ভর্তি যে সমস্ত করোনা আক্রান্তের অক্সিজেন-সহ জরুরি সাহায্যের কোনও প্রয়োজন নেই, তাঁদের হোটেলে স্থানান্তরিত করা হতে পারে বলেও জানিয়েছে প্রশাসন। যাঁদের একান্তই হাসপাতালে থেকে চিকিৎসার প্রয়োজন তাঁদের জন্য যাতে শয্যা খালি থাকে সেই বিষয়টি নিশ্চিত করতেই এই ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে প্রশাসনের তরফে।

    মহারাষ্ট্র সরকারের স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার জারি করা একটি নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, 'হাসপাতালের অনেক শয্যায় এমন আক্রান্তরা আছেন, যাঁদের জরুরি চিকিৎসার তেমন প্রয়োজন নেই। তাঁদের চিকিৎসার জন্যই আলাদা করে পাঁচতারা হোটেলে নিভৃতবাসের ব্যবস্থা করার কথা ভেবেছে প্রশাসন'। এই সমস্ত হোটেলগুলি পরিচালনার দায়িত্বে থাকবেন বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মী ও চিকিৎসকরা। প্রশাসন জানিয়েছে, এই প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে মুম্বই বিমানবন্দরের কাছের কয়েকটি হোটেল ইতিমধ্যেই এগিয়ে এসেছে। সেখানে তৈরি করা হচ্ছে পরিকাঠামো।

    হোটেলগুলিতে অন্তত ২০টি করে ঘর থাকতে হবে। সেখানেই বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স, কর্মীরা থাকবেন পরিষেবা দেওয়ার জন্য। এই পরিষেবার জন্য হোটেলগুলি ৪ হাজার টাকা করে বিল করতে পারবে। রোগীর সঙ্গে কেই থাকলে সেক্ষেত্রে চার্জ হবে ৬ হাজার টাকা। উপসর্গহীন রোগীরাও এই হোটেলগুলিতে গিয়ে থাকতে পারবেন।

    শেষ ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫৮ হাজার ৯৫২ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩৫ লক্ষ ৭৮ হাজার। সে রাজ্যে সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লক্ষ ১৩ হাজার ৬৩৫ জন। স্বাভাবিক কারণে এই বিপুল সংখ্যক রোগীর চাপ সামলাতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে প্রশাসন। ইতিমধ্যে মহারাষ্ট্র সরকারের পক্ষ থেকে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে রাজ্যে। জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: