corona virus btn
corona virus btn
Loading

দিন বদলেছে.. এখন বাড়ির দরজায় পুলিশ না এলেই বিপদ!

দিন বদলেছে.. এখন বাড়ির দরজায় পুলিশ না এলেই বিপদ!

বাড়ির দরজায় পুলিশ এলে আর মান-ইজ্জত থাকে না, এমনটাই ভাবত এই শহর... এখন বদলাচ্ছে সব কিছু

  • Share this:

#কলকাতা: বৃদ্ধ দাদা মশাই ভীষণ রেগে গিয়ে বাড়ির ছোট পুত্র কে বলেছিলেন। আমার বাড়িতে কোন দিন পুলিশ আসেনি। আজ তোমার জন্য, বাড়ির দরজায় পুলিশ এলো। ছি:ছি:ছি: সমাজে মুখ দেখাবো কি করে? -এটা কোনো সংলাপ নয় ।এটা আমাদের সমাজের সত্য কাহিনী। পাঠকরা অনেকেই জানেন, এই ধরনের ঘটনার কথা। একটা সময় বাড়ির দরজায় পুলিশ প্রবেশ করা মানে, সামাজিক মান মর্যাদা নষ্ট হওয়ার ভয় থাকতো।

এমনকি, সাধারণ মানুষও পুলিশকে অন্য চোখে দেখত। পুলিশে চাকরি করে জানলে ,তার সঙ্গে সহজে মেয়ে বিয়ে দিত না, মেয়ের বাবা মা। এরকম ঘটনার সাক্ষী এই সমাজ। অনেকে পুলিশকে তাচ্ছিল্য সহকারে মামা বলে সম্বোধন করে।বহু পুলিশ কর্মী রয়েছেন যাদের পরিবারকেও পাড়ার কিংবা গ্রামের লোকজন ,অন্য চোখে দেখেন।এরফলে পুলিশ যে মানসিক বিপর্যয়ে পড়ে,সেটা কোনদিন ভাবে নি এই সমাজ।

বহুবার বহু সমস্যায় সামাজিক বিপর্যয়ে, এই পুলিশের ভূমিকা ত্রাতা হিসেবে দেখা গেছে।করোনা আক্রমণে যখন, মানুষ প্রাণের ভয়ে ঘরের মধ্যে বন্ধ থাকছেন। কাজকর্ম নেই ।পেটে খিদে নিয়ে ঘরের বারান্দায় বসে রয়েছেন হতাশ হয়ে।ঠিক সেই সময় দেখা গেল, পুলিশ মানুষের দরজায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে, মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য।  এ এক অন্য ছবি।

ট্যাংরা থানার অতিরিক্ত পুলিশ আধিকারিক, প্রশান্ত ভৌমিক দক্ষিণ ট্যাংরার একটি বস্তিতে, ৩০০ জন পরিবারের হাতে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিলেন।শুধু একদিন নয় প্রতিদিনই প্রতিটি থানা এলাকার, বিভিন্ন বস্তিতে গরিব মানুষের হাতে খাদ্যবস্তু তুলে দিচ্ছেন পুলিশ। আর হাতজোড় করে বলছেন - ঘরের মধ্যে থাকতে। বাইরে না বেরোতে। যে পুলিশের বুটের শব্দে আর বন্দুক দেখে মানুষের, ভয়ে বুক কাঁপতো। আজ তারা গান গেয়ে, ১৫ দিন দরজা বন্ধ থাকা মানুষগুলোকে মানসিক শান্তি দিচ্ছেন। চেষ্টা করছেন অবসাদ থেকে দূরে রাখার।

পুলিশ যে এই সমাজের মানুষ ,তাদের সংসার আছে ।সন্তান আছে। তাদের কথা না ভেবে ,সাধারণ মানুষকে নিয়ে ভয়ের পৃথিবীটাকে ,স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করছেন। চেষ্টা করছেন ভয়মুক্ত করতে। চেষ্টা করছেন সংক্রমণ রোধ করতে।  পুলিশ নিয়ে সাধারণ মানুষের ধারণা যেমন আস্তে আস্তে বদলেছে। পুলিশ এবং সাধারণ মানুষের মানসিক দূরত্ব অনেক কমেছে। এই ভয়ঙ্কর মুহূর্তে তারাই যে সমাজের প্রকৃত বন্ধু, সেটা আবার প্রমাণ করলো এই সংকটের দিনে।  রাজনৈতিক কারবারিরাকি,আর এদের দিকে আঙ্গুল তুলে বলবেন? পুলিশ তোমার মেরুদন্ড সোজা কর?দুর্নীতিগ্রস্থ? এই পুলিশরা যখন দেশের ভালোর জন্য মিছিল আটকায়,তখন এই রাজনৈতিক নেতাদের উস্কানিতে,এই পুলিশদের মাথা ফাটানো হয়।  এখনি পরিচয় পাচ্ছে জনগন, রাজনৈতিক কারবারিরা সমাজ বন্ধু ? না পুলিশ?  জনগণের মতে,বন্ধু হিসাবে, পুলিশ এগিয়ে।

Shanku Santra

First published: April 8, 2020, 9:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर