corona virus btn
corona virus btn
Loading

Coronavirus: ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২৩৭, মৃত ৫

Coronavirus: ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২৩৭, মৃত ৫

বিশ্বজুড়ে করোনা-কাঁপুনি

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ফের বাড়ল ভারতে করোনা আক্রন্তের সংখ্যা। এই মুহূর্তে ভারতে করোনা আক্রান্ত বেড়ে ২৩৭। আক্রান্তদের মধ্যে ২০৫ ভারতীয়, ৩২ বিদেশি। ভারতে এখনও পর্যন্ত করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫। করোনা আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ ২৩।

বিশ্বজুড়ে করোনা-কাঁপুনি। ক্রমেই বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৷ তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ছড়াল ১১ হাজার ৷ গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ২.৫ লক্ষের বেশি ৷ ইতালিতে করোনায় মৃত্যু সর্বোচ্চ। ইতালিতে একদিনে মৃত্যু সবথেকে বেশি। করোনায় ইতালিতে মৃত ৪ হাজার ছাড়াল। ২৪ ঘণ্টায় ৬২৭ জনের মৃত্যু ইতালিতে। ফ্রান্সে ২৪ ঘণ্টায় ৭৮ জনের মৃত্যু। চিনে করোনায় নতুন করে কেউ আক্রান্ত হননি।

অন্রাযদিকে, রাজ্যে মিলল তৃতীয় করোনা আক্রান্ত। গতকাল, শুক্রবার একজন আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল, আজ, শনিবার ফের নতুন করে একজন আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে। উল্লেখ্য ওই তরুণী এবার স্কটল্যান্ড থেকে ফিরেছিলেন। তিনি হাবড়ার বাসিন্দা। গতকাল গভীর রাতে তাঁর লালরস পরীক্ষা করতে বেলেঘাটা নাইসেডে পাঠানো হয়। রাতেই রিপোর্ট আসে। সেখানে দেখা যায় ওই তরুণী করোনা পজিটিভ। আপাতত তিনি বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এই নিয়ে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে গেল তিন–এ। স্বাভাবিকভাবে করোনার কারণে এখন তীব্র আতঙ্কে ভুগছেন সাধারণ মানুষ। এভাবে রোগ যদি প্রকোপ বাড়াতে থাকে, তাহলে এর গৃহবন্দি হয়ে থাকা ছাড়া আর বাঁচার কোনও উপায় দেখছেন না তাঁরা।

এই তরুণী দেশের ফেরার পর গৃহবন্দী ছিলেন বলেও জানিয়েছে বাড়ির লোকেরা। যদিও সেই তথ্য খতিয়ে দেখছে প্রশাসন। স্কটল্যান্ডে গবেষণার কাজে গিয়েছিলেন ওই তরুণী। দেশে ফেরার পর বাড়িতেই ছিলেন। তারপর দিন দুয়েক আগে তাঁকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। প্রথমে উপসর্গ না দেখা দিলেও হঠাৎ তাঁর সর্দি কাশি দেখা যায়। তারপরই পরীক্ষা করা হয় লালারস। নাইসেডে পরীক্ষা করে দেখা যায় করোনা পজিটিভ। তারপরই শোরগোল পড়ে যায় চিকিৎসক মহলে।

গতকাল ইংল্যান্ড ফের এত যুবকের দেহে করোনা ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া যায়। সেই যুবক অববিবেচকের মতো শহরের নানা প্রান্তে ঘুরেছিল বলেও খবর মেলে। পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, করোনা সন্দেহ হলে বা করোনা আক্রান্ত হলে মানুষ যেন হাসপাতাল অথবা বাড়িতে অবশ্যই গৃহবন্দি থাকেন। না হলে ফোর্স কোয়েরেন্টাইন করবে রাজ্য। করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে একের পর ঘোষণাও করেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসন তৈরি থাকলেও মানুষের মধ্যে সচেতনতাও আসল কথা, সেটাই মনে করিয়ে দেন তিনি।

কিন্ত শনিবার সকালে ফের নতুন করে এক করোনা আক্রান্তের খবর আসায় স্বাভাবিকভাবে চিন্তা বেড়েছে প্রশাসন। এখন দেখার এই ‌তরুণীও অন্য দুজনের মতো ঘুরে বেরিয়েছিলেন নাকি বিবেচকের মতো সিদ্ধান্ত নিয়ে যথেষ্ট সুরক্ষা নিয়েছিলেন

First published: March 21, 2020, 10:22 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर