করোনা ভাইরাস

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

চূড়ান্ত অসাবধানতায় কোভিড বাড়ছেই! গত ২৪ ঘণ্টায় পাহাড় ও সমতলে আক্রান্ত ১১৬

চূড়ান্ত অসাবধানতায় কোভিড বাড়ছেই! গত ২৪ ঘণ্টায় পাহাড় ও সমতলে আক্রান্ত ১১৬

এক শ্রেণির মানুষ শুনছেই না। যার ফলে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, এক ব্যক্তি অবাধেই বিনা কোভিড প্রোটোকলে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: ফের ঊর্ধ্বমুখী গ্রাফ! পাহাড় ও সমতলে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। থামানোই যাচ্ছে না। শিলিগুড়ির বিশিষ্ট চিকিৎসক শীর্ষেন্দু পালের কথায়, নতুন করে লকডাউনের আর কোনও সম্ভাবনা আপাতত নেই। এখন সতর্কতা এবং সাবধানতা মেনে চলতে হবে সবাইকে। কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে উলটো চিত্র। মাস্ক প্রায় উধাও৷ কিন্তু মাস্ক বা ফেস কভারে মুখ ও নাক না ঢাকলে সমূহ বিপদ৷

এক শ্রেণির মানুষ শুনছেই না। যার ফলে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, এক ব্যক্তি অবাধেই বিনা কোভিড প্রোটোকলে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। বাজার করছেন, অফিস বা ব্যবসা করছেন। আবার বাড়িও ফিরছেন। তিনি হয়তো দিব্যি আছেন। তাঁর হয়তো ইম্যুইনিটি ক্ষমতা আছে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বাড়িতে বয়স্ক লোকজন আছে। তাঁদের সংষ্পর্ষে আসছেন। কিন্তু তাঁদের ইম্যুইনিটি ক্ষমতা তুলনায় কম। আক্রান্ত হচ্ছেন। অর্থাৎ এক জনের অসাবধানতায় আক্রান্ত হচ্ছেন পরিবারের অন্যজন। এভাবেই ছড়াচ্ছে সংক্রমণ।

শহরজুড়ে চূড়ান্ত অসতর্কতায় আজ কোভিডের এই বাড়বাড়ন্ত৷ প্রতিদিনই বাড়ছে সংক্রমণ। গত ২৪ ঘন্টায় সেই সংখ্যাটা ১০০ পার! শিলিগুড়ি পুরসভার ৪৭টি ওয়ার্ড এবং দার্জিলিংয়ের পাহাড় ও সমতল। মিলিয়ে আক্রান্ত ১১৬ জন৷ এর মধ্যে পুর এলাকাতেই ৭১ জন৷ গত কয়েক দিনের তুলনায় এক লাফে বেড়েছে সংক্রমণ। মহকুমার চার ব্লকে নতুন করে আক্রান্ত ২৯ জন। মাটিগাড়ায় ১২ জন, নকশালবাড়িতে ১১ জন, ফাঁসিদেওয়া ও খড়িবাড়িতে ৩ জন করে আক্রান্ত।

গ্রামে কোভিড প্রোটোকলের বালাই নেই৷ হাট কিংবা বাজার। গিজ গিজ ভিড়৷ আর পাহাড়ে নতুন করে সংক্রমিত ১৬ জন। যার মধ্যে দার্জিলিং পুর এলাকায় ৬ জন, পুলবাজার, সুকনা এবং সুখিয়াপোখরিতে ৩ জন করে এবং তাগদায় আক্রান্ত ১ জন। পাহাড়ে অবশ্য নতুন করে সংক্রমণ অন্য এলাকায় ছড়ায়নি। অন্যদিকে সুস্থতার হার যথারীতি ভালো। প্রতিদিনই ভালো সংখ্যায় আক্রান্তরা সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরছেন। এদিনও জেলার ৩ কোভিড হাসপাতাল এবং হোম আইশোলেশনে কোভিড জয় করেছেন ৭৬ জন। যা কিছুটা স্বস্তিদায়ক৷

PARTHA PRATIM SARKAR

Published by: Arindam Gupta
First published: September 21, 2020, 11:27 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर