‘‘করোনাভাইরাসও জীবন্ত প্রাণী, ওদেরও আমাদের মতো বাঁচার অধিকার আছে’’, মন্তব্য উত্তরাখণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর

ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত, ফাইল চিত্র

তিনি মনে করেন, ‘‘ দার্শনিক দিক থেকে দেখতে গেলে করোনা জীবাণুও জীবন্ত ৷ তারও প্রাণ আছে ৷ আমাদের সকলের মতো তারও বাঁচার অধিকার আছে ৷ কিন্তু আমরা আমাদের সবথেকে বুদ্ধিমান বলে মনে করি৷ তাই এই জীবাণুকে আটকানোর চেষ্টা করে যাচ্ছি ৷ সেই কারণে করোনা জীবাণুও ক্রমাগত অভিযোজিত হয়ে চলেছে ৷’’

  • Share this:
    দেহরাদূন : ‘‘ করোনা ভাইরাস একটি জীবন্ত প্রাণী৷ ওরও বেঁচে থাকার অধিকার আছে৷’’ বললেন উত্তরাখণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত৷ বেফাঁস এই মন্তব্যের জেরে ইতিমধ্যেই বেশ বিপাকে এই প্রবীণ রাজনীতিক ৷ তিনি মনে করেন, ‘‘ দার্শনিক দিক থেকে দেখতে গেলে করোনা জীবাণুও জীবন্ত ৷ তারও প্রাণ আছে ৷ আমাদের সকলের মতো তারও বাঁচার অধিকার আছে ৷ কিন্তু আমরা আমাদের সবথেকে বুদ্ধিমান বলে মনে করি৷ তাই এই জীবাণুকে আটকানোর চেষ্টা করে যাচ্ছি ৷ সেই কারণে করোনা জীবাণুও ক্রমাগত অভিযোজিত হয়ে চলেছে ৷’’ তবে একইসঙ্গে সাধারণ মানুষকে এই জীবাণু থেকে দূরে সতর্ক থাকতে বলেছেন বিজেপি-র এই বর্ষীয়ান নেতা ৷ ২০১৭ থেকে ২০২১ অবধি উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন রাওয়াত৷ একটি বেসরকারি চ্যানেলে তাঁর এই মন্তব্য নেট মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে সময় নেয়নি ৷ নেটিজেনদের কাছে তিনি এখন উপহাসের খোরাক৷ তাঁর মন্তব্য ঘিরে তৈরি মিম ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক মাধ্যমে৷ ভেসে এসেছে সরস এবং তির্যক মন্তব্য ৷ এক টুইটারেত্তির বলেছেন, ‘করোনাভাইরাসকে তবে সেন্ট্রাল ভিস্তায় আশ্রয় দেওয়া হোক৷’ শুধু নেটিজেনরাই নন৷ অতিমারির দ্বিতীয় ঢেউে বিপর্যস্ত দেশে এহেন মন্তব্যের জেরে বিপাকে পড়েছে রাওয়াতের দল বিজেপি-ও৷ স্বভাবতই বিরোধী পক্ষের আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে তাদের ৷ কংগ্রেসনেতা সূর্যকান্ত দশমনের মতে, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী যা বলেছেন, তা একইসঙ্গে মূর্খামি ও জ্ঞানহীন কথা ৷ একইরকম তীব্র ব্যঙ্গ আপ-এর উত্তরাখণ্ডের প্রতিনিধি অমরজিৎ সিং রানার ৷ তিনি মনে করেন রাওয়াতের মন্তব্য আসলে তাঁর জ্ঞানের প্রতিফলন ৷ রানার বক্তব্য, রাওয়াতের কথা কার্যত সামগ্রিকভাবে বিজেপি নেতাদের জ্ঞানের ছবি ৷ তবে রাওয়াতের হাস্যকর মন্তব্য এই প্রথম নয় ৷ এর আগে তিনি বলেছিলেন, গরু হল একমাত্র প্রাণী, যে নিঃশ্বাসেও অক্সিজেন ত্যাগ করে ৷
    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: