বিদেশি পর্যটকরা ভারতে আসতে চাইছেন না, করোনার থাবা এ বার পর্যটন শিল্পেও

বিদেশি পর্যটকরা ভারতে আসতে চাইছেন না, করোনার থাবা এ বার পর্যটন শিল্পেও

করোনা আতঙ্কে বিদেশি পর্যটকরা ভারতে আসতেই চাইছেন না। তাঁর আঁচ এসে পড়েছে এ রাজ্য- সহ সারা পূর্ব ভারতেই ৷

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা ভাইরাসের থাবা এ বার পর্যটন শিল্পেও। করোনা আতঙ্কে বিদেশি পর্যটকরা ভারতে আসতেই চাইছেন না। তার আঁচ এসে পড়েছে এ রাজ্য - সহ সারা পূর্ব ভারতেই। করোনা আতঙ্কে ইতিমধ্যেই বহু বিদেশি পর্যটক ভারতে আসার পরিকল্পনা বাতিল করে দিয়েছেন। তাতে সমস্যায় পড়েছেন এ রাজ্যের পর্যটন শিল্পে জড়িয়ে থাকা ব্যবসায়ীরা।

এখানেই শেষ নয়, পর্যটকদের আসার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সিকিম, ভূটান এবং অরুণাচল প্রদেশ। তাতে কলকাতার ব্যবসায়ীরা পড়েছেন আরও সমস্যায়। কারণ, পূর্ব এবং উত্তর-পূর্ব ভারতের বেশির ভাগ পর্যটন শিল্পই চলে কলকাতাকে কেন্দ্র করে।

IATO-র কর্তা দেবজিৎ দত্ত বলেন, "এই সময়ে সিকিম, ভূটান এবং অরুণাচল প্রদেশ অনির্দিষ্টকালের জন্য পর্যটক প্রবেশ বন্ধ করে দিয়েছে। এই তিনটি জায়গায় এই সময়ে প্রচুর পর্যটক আসেন। স্বভাবতই ওই সব জায়গায় পর্যটক আসা বন্ধ হয়ে গেলে পর্যটন শিল্প ধাক্কা তো খাবেই। "

TAFI কর্তা অনিল পাঞ্জাবি বলেন, "বেশ কিছু কর্পোরেট সংস্থা ইতিমধ্যেই তাদের সম্মেলন বাতিল করে দিয়েছে। এতে হোটেল ব্যবসা এবং তার সঙ্গে পর্যটন ব্যবসা দুই-ই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। "

শনিবারই করোনা আতঙ্কে তাজমহলে পর্যটক প্রবেশ বন্ধ করতে চেয়েছেন আগরার মেয়র। এই ঘোষণা এবং বার্তা বিদেশে আরও নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে বলে মনে করছেন পর্যটন ব্যবসায়ীরা। যদিও ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত নন, এ রকম পর্যটকদের নিয়ে কোনও আতঙ্ক নেই বলে আস্বস্ত করা হয়েছে। তাতে অবশ্য পরিস্থিতির বিশেষ পরিবর্তন হয়নি। বিদেশ থেকে আসা পর্যটকদের যে ধরনের পরীক্ষানিরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে, সে কথা ভেবেই বেশির ভাগ পর্যটক তাঁদের পরিকল্পনা বাতিল করছেন।

এ দিকে, চিনে যাওয়ার পরিকল্পনা যাঁদের রয়েছে, তাঁদের ভিসা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার। নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে ইরান, সিঙ্গাপুর, ইতালি এবং কোরিয়া যাওয়া নিয়েও। এর পরেও যাঁদের ওই সব দেশে যেতেই হবে, তাঁদের ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট নির্দেশিকা দিয়েছে ভারত সরকার। পাশাপাশি, দেশে ফেরার পরে তাঁদের পৃথক জায়গায় রেখে 'কোয়ারান্টাইন' করার পরেই ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

Shalini Datta

First published: March 8, 2020, 6:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर