• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • ৩ বছরের ছেলের মুখাগ্নিও করতে পারলেন না, শুধু চোখের দেখা দেখলেন এই করোনা যোদ্ধা

৩ বছরের ছেলের মুখাগ্নিও করতে পারলেন না, শুধু চোখের দেখা দেখলেন এই করোনা যোদ্ধা

শিশুর মৃত্যুতেও দূরেই থাকতে হল বাবাকে।

শিশুর মৃত্যুতেও দূরেই থাকতে হল বাবাকে।

মেডিক্যাল প্রোটোকলের কারণে দূর থেকেই ছেলের শেষকৃত্য দেখতে হল, সামনাসামনি যেতে পারলেন না পরিবারের লোকের।

  • Share this:

    #লখনউ: সারাদিন রাত জেগে করোনা রোগীর সেবা করে চলেছেন। কোভিড গিয়ার খোলার উপায় নেই। এদিকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে এক অন্য হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়েই মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সন্তান। তাঁর মৃত্যুতে কার্যত কিছুই করতে পারলেন না এই বাবা।

    উত্তরপ্রদেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩০০০ ছুঁইছুঁই। বহু করোনা যোদ্ধাকেই নাওয়াখাওয়া ভুলে সেবা দিতে হচ্ছে। একবার গিয়ার পরে নিলে শিফট শেষ হওয়ার আগে তা খোলারও উপায় নেই। এই যুদ্ধেই সামিল লখনউয়ের লোকবন্ধু হাসপাতালের ওয়ার্ডবয় মনীশ কুমার। একদিকে রোগীর সেবা করে চলেছেন, অন্য দিকে ঘড়ি দেখছেন। কখন সুসংবাদ আসবে। এল অবশ্য খারাপ খবরটাই। চিকিৎসকরা জানিয়ে দিলেন, মনীশের তিন বছরের সন্তানকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

    সবটা জেনেও কর্তব্যে ফাঁকি দেননি মনীশ। কাজ সেরেই যান ছেলেকে চোখের দেখা দেখতে। কিন্তু সেখানেও বাধা। মেডিক্যাল প্রোটোকলের কারণে দূর থেকেই ছেলের শেষকৃত্য দেখতে হল, সামনাসামনি যেতে পারলেন না পরিবারের লোকের। কারণ তাঁর থেকেও সংক্রমণ ছড়ানোর ভয় রয়েছে।

    মুহূর্তে ছাই হয়ে গিয়েছে একরত্তি ছেলের দেহ। শ্বাস টেনে ফের কাজে ফেরার প্রস্তুতি। মনীশ জানেন, এমন বহু শিশুই আজ তারই মুখাপেক্ষী।
    Published by:Arka Deb
    First published: