করোনা ভাইরাস আতঙ্ক এবার হানা দিল বিনোদন জগতেও !

করোনা ভাইরাস আতঙ্ক এবার হানা দিল বিনোদন জগতেও !
photo source collected

বিনোদন জগতেও ঘনিয়ে এসেছে করোনা ভাইরাসের ঘন ছায়া। ‘সূর্যবংশি’, স্যার-এর মতো একাধিক হিন্দি ছবির পিছিয়ে গিয়েছে মুক্তি।

  • Share this:

#কলকাতা: বিনোদন জগতেও ঘনিয়ে এসেছে করোনা ভাইরাসের ঘন ছায়া। ‘সূর্যবংশি’, স্যার-এর মতো একাধিক হিন্দি ছবির পিছিয়ে গিয়েছে মুক্তি। হলিউডের অবস্থাও একই রকম। প্রযোজকরা পিছিয়ে দিচ্ছেন একের পর এক ছবির মুক্তি। পেছানো হতে পারে ৭৩তম কান চলচ্চিত্র উৎসব।  করোনা ভাইরাসের অতঙ্ক থাবা বসিয়েছে বিনোদন জগতেও। রোহিত শেট্টির ambitious প্রজেক্ট ‘সূর্যবংশি’ মুক্তি পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। ৩১ শে মার্চ পর্যন্ত জম্মু, কাশ্মির, দিল্লি, কেরালায় বন্ধ রাখা হচ্ছে প্রেক্ষাগৃহ। সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রযোজনা সংস্থা। ২৪শে মার্চ মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল এই ছবি। আপাতত অর্নিদৃষ্ট কালের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে মুক্তি। একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ‘স্যার’ ছবির প্রযোজনা সাংস্থা। তিলোত্তমা সোম অভিনীত এই ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল ২০শে মার্চ। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের কথা মাথায় রেখেই মুক্তি পেছানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রযোজনা সংস্থা।

শুধু ছবি মুক্তিই নয়, সিটি ট্যুর এবং মঞ্চে অনুষ্ঠানও বাতিল করছেন তারকারা। এপ্রিল মাসের ৩ থেকে ১২ তারিখ পর্যন্ত কানাডা এবং ইউএসএ-তে অনুষ্ঠান করতে যাওয়ার কথা ছিল সলমন খানের। করোনা ভাইরাসের জেরে এই সফর পিছিয়ে দিলেন সল্লু মিঞা। একই ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দীপিকা পাড়ুকোন। করোনার জন্যই প্যারিস ফ্যাশন উইকে যাচ্ছেন না তিনি।

83-র মুক্তি পিছনোর কথাও ভাবনা-চিন্তা করছেন এই ছবির মেকার্সরা। এপ্রিল মাসের ১০ তারিখে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল এই ছবির। এখনও মুক্তির তারিখে কোনও বদল হয়নি। তবে এই নিয়ে কথাবার্তা চলছে। ইতিমধ্যেই পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে ক্রিটিক্স চয়েস মুভি অ্যাওয়ার্ড ও আইফা অ্যাওয়ার্ড। মার্চ মাসে, মধ্য প্রদেশে আয়োজিত হওয়ার কথা ছিল আইফা।

শুধু বলিউডেই নয়। নিকি কারো পরিচালিত ‘মুলান’ ছবির মুক্তিও পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

টম হ্যাঙ্কস করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পাশাপাশি, হলিউডেও প্রভাব পড়েছে করোনার। ‘ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস 9’, ‘আ কোয়াইট প্লেস টু’-এর মতো বেশ কিছু ছবির মুক্তি পিছিয়ে গিয়েছে। করোনার জেরে বাতিল করা হতে পারে কান চলচ্চিত্র উৎসব। ৭৩ তম কান চলচ্চিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ১২ মে থেকে ২৩শে মে পর্যন্ত। কান চলচ্চিত্র উৎসবের প্রেসিডেন্ট, পেরি লেসকিওর একটি ফরাশি পত্রিকা লে ফিগারো-র কাছে এই সংশয়ের কথা প্রকাশ করেন। এপ্রিল মাসে করোনার প্রকোপ যদি না কমে তাহলে বাতিল করা হবে এই প্রেস্টিজিয়াস ফেস্টিভ্যাল। অবস্থার অবনতি ঘটলে বিনোদন জগতও প্রায় ধসে পড়বে তা বলাই যায়।

ARUNIMA DEY

First published: March 13, 2020, 5:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर