১৬ জানুয়ারি শুরু টিকাকরণ, পূর্ব বর্ধমান জেলার বিভিন্ন কেন্দ্রে পৌঁছে গেল করোনা ভ্যাকসিন

১৬ জানুয়ারি শুরু টিকাকরণ, পূর্ব বর্ধমান জেলার বিভিন্ন কেন্দ্রে পৌঁছে গেল করোনা ভ্যাকসিন

পূর্ব বর্ধমান জেলার প্রতিটি প্রান্তে পৌঁছে গেল কোভিড ভ্যাকসিন। শনিবার জেলার তেরটি কেন্দ্র থেকে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু হবে।

পূর্ব বর্ধমান জেলার প্রতিটি প্রান্তে পৌঁছে গেল কোভিড ভ্যাকসিন। শনিবার জেলার তেরটি কেন্দ্র থেকে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু হবে।

  • Share this:

#বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলার প্রতিটি প্রান্তে পৌঁছে গেল কোভিড ভ্যাকসিন। শনিবার জেলার তেরটি কেন্দ্র থেকে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু হবে। সেইসব কেন্দ্রগুলিতে বৃহস্পতিবার ভ্যাকসিন পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। বুধবার কড়া নিরাপত্তায় করোনার ভ্যাকসিন পূর্ব বর্ধমান জেলায় এসেছিল। কবে ভ্যাকসিন আসবে, কবেই বা এই মারণ রোগ থেকে মুক্তি মিলবে তা নিয়ে উৎকণ্ঠায় ছিলেন জেলার বাসিন্দারা। সেই ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু হওয়ায এখন হাতে গোনা কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষা।

বৃহস্পতিবার রাতে পূর্ব বর্ধমান জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রণব কুমার রায় বলেন,জেলার যে তেরটি জায়গায় এই ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু হবে সেইসব কেন্দ্রগুলিতে ইতিমধ্যেই জেলা স্বাস্থ্য দফতরের স্টোর রুম থেকে তা পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন সেখানে ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু করার চূড়ান্ত প্রস্তুতি চলছে। গাইডলাইন মেনে বিশেষ তাপমাত্রায় সেই কেন্দ্রগুলিতে ভ্যাকসিন সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছে।

প্রথম দফায় যে ভ্যাকসিন এসেছে তাতে জেলার 31 হাজার 500 জনকে তা দেওয়া হবে। প্রথম ডোজ নেওয়ার পরে আঠাশ দিনের মাথায় তাদের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে। বিশেষ পদ্ধতিতে 2 থেকে 8 ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ভ্যাকসিনগুলি রাখা হয়েছে। বুধবার বর্ধমানের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের অফিসে বিশেষ পুলিশি নিরাপত্তায় ভ্যাকসিন আনা হয়। গাড়ি করে এই জেলার জন্য তিনটি বড় বাক্স ভ্যাকসিন পাঠানো হয়েছে। ভ্যাকসিনগুলি ঠিক রাখতে বড় বাক্সের ভেতরে ভায়াল ভর্তি ছোট বাক্স আইস ব্যাগ দিয়ে রাখা হয়েছিল।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, যে তেরটি কেন্দ্র থেকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে সেখানে চব্বিশ ঘন্টা পুলিশি নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়েছে। সবার আগে স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্তদের এই ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। তার মধ্যে নার্স, চিকিৎসক, আশা কর্মীরা থাকছেন। স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত বেসরকারি সংস্থার চিকিৎসক, নার্স সহ স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত সকলেই অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে এই ভ্যাকসিন পাবেন।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published: