করোনা আবহে মুখে মাস্ক গ্রহরাজের, জিভ লুকোলেন মা কালী

করোনার সংক্রমণ রুখতে বেশিরভাগ বাসিন্দা এখন মুখ ঢেকে বাইরে বের হচ্ছেন। বাদ গেলেন না দেবতা গ্রহরাজও।

করোনার সংক্রমণ রুখতে বেশিরভাগ বাসিন্দা এখন মুখ ঢেকে বাইরে বের হচ্ছেন। বাদ গেলেন না দেবতা গ্রহরাজও।

  • Share this:

#মেমারি: এখন ঘরের বাইরে পা রাখলে মাস্ক বা ফেস কভারে মুখ ঢাকা বাধ্যতামূলক। করোনার সংক্রমণ রুখতে বেশিরভাগ বাসিন্দা এখন মুখ ঢেকে বাইরে বের হচ্ছেন। বাদ গেলেন না দেবতা গ্রহরাজও। পূর্ব বর্ধমানের মেমারিতে ধরা পরল তেমনই ছবি। প্রতিষ্ঠা দিবসে মাস্কে মুখ ঢেকে আবির্ভাব ঘটল গ্রহরাজের। সেই সঙ্গে মন্দিরের সামনে রাখা মা কালী মুখও ছিল ফেস কভারে ঢাকা। তবে পায়ের তলায় বাবা ভোলানাথকে পাওয়া গেল মাস্ক ছাড়া অবস্থাতেই।অবশ্য যিনি কন্ঠে গরল ধারণ করে রয়েছেন, সামান্য ভাইরাস সেই দেবাদিদেবের কিছুই করতে পারবে না এই ভাবনা থেকেই হয়তো তার মুখ এদিন খোলাই ছিল।

পূর্ব বর্ধমান জেলার মেমারি স্টেশন বাজারে গ্রহরাজের মন্দির রয়েছে। প্রতি শনিবার সন্ধ্যায় পুজো হয় নিষ্ঠার সঙ্গে। ভিড় করেন ভক্তরা। মোমবাতি জ্বালান। ভক্তিভরে পুজো দিন। পুজো শেষে প্রসাদ খেয়ে বাড়ি যান। আজ শনিবার লকডাউনের দিনেই সেই ঠাকুরের প্রতিষ্ঠা দিবস। অন্যান্য বছর বিশেষ ধুমধাম করে গ্রহরাজের এই প্রতিষ্ঠা দিবস পালন করা হয়। নতুন প্রতিমা মন্দিরে স্থান পায়। সেই প্রতিমা মন্দিরে থাকে এক বছর। এরপর প্রতিষ্ঠা দিবস পুরনো প্রতিমা বিসর্জন দিয়ে নতুন প্রতিমাকে বরণ করে মন্দিরে তোলা হয়। সেই উপলক্ষে দিনভর চলে খাওন দাওন সহ নানান অনুষ্ঠান।

কিন্তু এবার এই করোনা পরিস্থিতিতে আড়ম্বরের সঙ্গে প্রতিষ্ঠা দিবস পালনের কথা ভাবতে পারেননি এলাকার বাসিন্দারা। তাই বরাবরের রীতি ভুলে আড়ম্বরহীন ভাবেই গ্রহরাজের এই প্রতিষ্ঠা দিবস পালন করলেন এলাকার বাসিন্দারা। সেই  উপলক্ষে আজ পু্রনো প্রতিমাকে মাস্ক পরিয়ে বিসর্জন দিয়ে নতুন গ্রহরাজ ঠাকুরকেও মাস্ক পরিয়ে মন্দিরে প্রতিষ্ঠা করেন  গ্রহ রাজের ভক্তরা।

এলাকার বাসিন্দা সুজিত দাস, রামকৃষ্ণ হাজরা, প্রবীর সু বললেন, এই গ্রহ রাজ ঠাকুরের পুজো পঁয়তাল্লিশ বছর ধরে চলে আসছে। এবার প্রতিষ্ঠা দিবস শুধু নিয়ম মেনে পালিত হল। আট বছর ধরে এই মন্দিরে পুজো করে আসছেন মনি বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, বাড়ির বাইরে যাওয়া মানেই করোনার সংক্রমণ সঙ্গে নিয়ে বাড়ি ফেরা। তাই মাস্ক সহ স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা উচিত। সে বার্তা দিতেই গ্রহরাজ, মা কালীকেও মাস্ক পরানো হয়েছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published: