corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা আক্রান্তের খোঁজ, অশোকনগরে ৩ দিন সুপার লক ডাউন, ঘরবন্দি শহর

করোনা আক্রান্তের খোঁজ, অশোকনগরে ৩ দিন সুপার লক ডাউন, ঘরবন্দি শহর
অশোকনগর (নিজস্ব ছবি)

রবিবার সন্ধ্যায় করোনা উপসর্গ থাকা এক ব্যক্তির লালারসের নমুনা পরীক্ষার পর রিপোর্ট পজেটিভ আসে, তারপরই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আশকনগর। এক কথায় স্তব্ধ এলাকার জনজীবন।

  • Share this:

#আশোকনগরঃ করোনায় আক্রান্ত অশোকনগরের এক বাসিন্দা। রবিবার সন্ধ্যায় তাঁর লালারসের নমুনা করোনা পজেটিভ আসার পরই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আশকনগর। এক কথায় স্তব্ধ এলাকার জনজীবন। বন্ধ এলাকার সব বাজার, দোকান। খাঁ খাঁ করছে শহরের জনবহুল এলাকাগুলো।

অশোকনগর কল্যাণগড় পুরসভার তরফ থেকে রবিবার সন্ধ্যায় বাজার বন্ধের সিদ্ধান্তের কথা সাধারণ মানুষকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। শহরের তিনটি প্রধান বাজার কল্যানগড় বাজার, কচুয়া বাজার এবং গোল বাজার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আগামী তিনদিন। আজ অশোকনগর কল্যানগড় পুরসভা এলাকে সুপার লক ডাউন এলাকা বলা চলে। গতকালকে অশোকনগর বাঁশফুল পঞ্চায়েতের পুটিয়া এলাকায় এক বছর ৫৩ ব্যক্তির করোনা রিপোর্ট করোনা সংক্রমন পজেটিভ আসে। অশোকনগর কল্যানগড় পুরসভার পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা করোনা পজেটিভ। তার উপর তিনি চার দিন ভর্তি ছিলেন অশোকনগর বয়েজ হোম  হাসপাতালে। আর তাঁর পরিবারের সদস্যরা এলাকায় চারদিন ধরে যথেচ্ছ ঘুরে বেড়িয়েছেন। ফলে আতঙ্কে এলাকার মানুষ।

জানা গিয়েছে, আক্রান্তের ভাই পেশায় আইনজীবী। গতকাল সন্ধ্যাতেও তাঁকে কল্যানগড় বাজারে  ঘোরাঘুরি করতে দেখা গিয়েছে। প্রশাসনের তরফে জানা গিয়েছে, আজ সকাল থেকে অশোকনগর রাজ্য সাধারণ হাসপাতাল স্যানিটাইজ করা হবে। অশোকনগর কল্যানগড় পুরসভার পুরপ্রধান প্রবোধ সরকার জানিয়েছেন,  অশোকনগরের সমস্ত বাজার তিনদিন ধরে বন্ধ থাকবে। সব বাজার গুলিকে স্যানিটাইজ করা হবে। আর এই ঘোষণার পরই সমস্যায় পড়েছেন সাধারণ মানুষ। পাড়ার দোকানই এখন তাঁদের একমাত্র ভরসা। বাজার বন্ধের প্রভাব পড়েছে মাছ ব্যবসায়ীদের উপর। তাদেরই একজন শ্যামল হালদার। তিনি বলেন, মাছের চাহিদা অশোকনগর কল্যানগড় পুরসভা এলাকায় রয়েছে। কিন্তু অধিকাংশ পাড়াতেই সকাল থেকে ঢুকতে পারছেন না কেউ। কারন পাড়ার গলিতে বাঁশের ব্যারিকেড।

অশোকনগর কল্যাণগড় পৌরসভার পুর প্রধান প্রবোধ সরকার বলেন, নাগরিকের সমস্যা থাকলে পুরসভার হেল্পলাইন নম্বরে তাঁরা যোগাযোগ করুন। দিন রাত, সবসময় জন্য চালু করা হয়েছে হেল্পলাইন নম্বর। প্রয়োজনে 9233207337 নম্বরে জহাজগ করতে পারবেন এলাকাবাসী। এই নম্বরে ফোন করলে প্রশাসন সহযোগিতা করবে। এদিকে, আক্রান্তে পরিবারের সদস্যদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠান হয়েছে। পাশাপাশি, শেষ কয়েকদিন তিনি বা তাঁর পরিবার কার কার সরাসরি বা পরোক্ষ সংস্পর্শে এসেছেন বা তাঁরা কারও বাড়ি গিয়েছেন কিনা তাঁর তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। সেইসব সংস্পর্শে আসা সকলকেই কোয়ারেন্টাইনে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

RAJARSHI ROY

Published by: Shubhagata Dey
First published: April 27, 2020, 1:46 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर