corona virus btn
corona virus btn
Loading

আদর্শ লকডাউন!‌ নির্বোধদের চোখে আঙুল দিয়ে শৃঙ্খলা শেখাচ্ছে রাজস্থানের এই গ্রাম

আদর্শ লকডাউন!‌ নির্বোধদের চোখে আঙুল দিয়ে শৃঙ্খলা শেখাচ্ছে রাজস্থানের এই গ্রাম

রাজস্থানে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৪৫ জন আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে।

  • Share this:

#‌ভিলওয়ারা:‌ করোনা আতঙ্কের মাঝে ভিলওয়ারা গ্রাম যেন একটা উদাহরণ। গত ২০ মার্চ এই গ্রামে প্রথম করোনা আক্রান্ত এক চিকিৎসকের সন্ধান পাওয়া যায়। সেই চিকিৎসক যাঁদের চিকিৎসা করেছিলেন, তাঁদের সকলেরই আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা সেই সময়ই তৈরি হয়েছিল। ফলে সঙ্গে সঙ্গে গ্রামে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। বলা হয়, এই গ্রামে করোনা ছড়িয়ে পড়ার কেন্দ্র হচ্ছে একটি বেসরকারি হাসপাতাল, যেখানে সেই চিকিৎসক চিকিৎসা করতেন। এই ঘটনার পরই শুরু হয় লকডাউন। কিন্তু ততক্ষনে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে।

গ্রামের মোট ১৭ জনের মধ্যে এখনও পর্যন্ত করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বলে খবর। কিন্তু এসবের মাঝেও গোটা গ্রাম যেভাবে লকডাউন পালন করেছে, তা উদাহরণ গোটা দেশের কাছে। এই গ্রামের শৃঙ্খলা উদাহরণ হতে পারে এই আতঙ্কের সময়ে। যদিও প্রশাসন এখানে সবসময় সাধারণ মানুষের পাশে ছিল। সব বাড়িতে বাড়িতে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য পৌঁছে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন, দোরে দোরে পৌঁছে দিয়েছে খাবার। একাধিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য সম্পর্কিত সংগঠনগুলিও প্রথমে উচ্চ-মধ্যবিত্ত এবং মধ্যবিত্তের বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস। পাশাপাশি, গরিব মানুষের বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হয়েছে রান্না করা খাবার। যাতে তাঁদের কোনভাবেই বাড়ি থেকে বের হতে না হয়। এই কাজে প্রশাসনের পাশে অসংখ্য সাধারণ মানুষও দাঁড়িয়েছেন। সেই কারণেই অসম্ভবকে সম্ভব করতে পেরেছে রাজস্থান সরকার।

রাজস্থানে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৪৫ জন আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে। যাঁদের মধ্যে ১৭ জনই জয়পুর থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে এই গ্রামের। রাজ্যের মোট আক্রান্তের ১৭ শতাংশ মানুষ এই গ্রামের বাসিন্দা। স্বাভাবিকভাবে ছড়িয়ে পড়া আটকাতে একান্তই প্রয়োজন ছিল লকডাউনের। তাই এখানকার মানুষ সচেতনভাবেই সফল করেছেন নির্দেশ। এখনও রাস্তায় তেমন লোক দেখতে পাওয়া যায় না বরং প্রশাসন বেরিয়ে বাড়িতে বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেয়, প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র পৌঁছে দেয়।

করোনাভাইরাস আটকাতে আদর্শ রাজস্থানের এই ভিলওয়ারা। একদিকে দেশজুড়ে কখনও দেখা যাচ্ছে প্রশাসন লকডাউনের সিদ্ধান্ত কার্যকর করার কাজ করছে। অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন পুলিশকর্মীরা, কাজ করছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। কিন্তু তার মাঝেও কেউ কেউ দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো রাস্তায় বেরিয়ে পড়ে গোটা প্রক্রিয়াকে বানচাল করে দিচ্ছে। এসবের মাঝেই সচেতনতার অন্য বার্তা দিচ্ছে ভিলওয়ারা।

First published: March 26, 2020, 1:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर