করোনা আবহে বদলে গিয়েছে নিয়ম, মার্কশিট সংগ্রহের জন্য বিশেষ নির্দেশিকা জারি করল পর্ষদ

করোনা আবহে বদলে গিয়েছে নিয়ম, মার্কশিট সংগ্রহের জন্য বিশেষ নির্দেশিকা জারি করল পর্ষদ

মাধ্যমিকের মার্কশিট পাওয়া যাবে আগামী ২২ ও ২৩ জুলাই। করোনার জেরে স্কুল থেকে মার্কশিট দেওয়া নিয়ে এবার তৈরি হয়েছে গাইডলাইন।

মাধ্যমিকের মার্কশিট পাওয়া যাবে আগামী ২২ ও ২৩ জুলাই। করোনার জেরে স্কুল থেকে মার্কশিট দেওয়া নিয়ে এবার তৈরি হয়েছে গাইডলাইন।

  • Share this:

#কলকাতা: বুধবার সকালে প্রকাশিত হয়েছে মাধ্যমিকের ফল ৷ করোনা আবহে বন্ধ আপাতত বন্ধ স্কুল ৷  করোনা পরিস্থিতির জেরে মার্কশিট দেওয়ার ক্ষেত্রে রদবদল এনেছে পর্ষদ। এবার পড়ুয়া নয়, অভিভাবকদের হাতে মার্কশিট তুলে দেবে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এবার আর ফলপ্রকাশের দিন নয়, করোনার জেরে মাধ্যমিকের মার্কশিট পেতে প্রায় এক সপ্তাহের অপেক্ষা ৷ মাধ্যমিকের মার্কশিট পাওয়া যাবে আগামী ২২ ও ২৩ জুলাই। করোনার জেরে স্কুল থেকে মার্কশিট দেওয়া নিয়ে এবার তৈরি হয়েছে গাইডলাইন। সেই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, এবার কোনও পড়ুয়ার হাতে মার্কশিট দেওয়া হবে না ৷ মার্কশিট দেওয়া হবে অভিভাবকদের ৷ মার্কশিট নিতে একসঙ্গে যেন অনেকে স্কুলে হাজির না হন  ৷ মার্কশিট বিলির ক্ষেত্রে স্কুলগুলিকে সময় ভাগ করে দিতে হবে ৷ কোন পড়ুয়ার মার্কশিট কখন দেওয়া হবে তা আগে থেকে অভিভাবকদের জানাতে হবে ৷ এছাড়া নির্দেশিকায় আরও বলা হয়েছে, অভিভাবককে মার্কশিট নিতে তাঁর পরিচয়পত্র এবং পড়ুয়ার সঙ্গে সম্পর্কের নথি নিয়ে স্কুলে যেতে হবে ৷ পড়ুয়ার অ্যাডমিট কার্ড এবং রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট নিয়ে অভিভাবককে স্কুলে যেতে হবে ৷ মার্কশিট বিলির সময় শিক্ষক, অভিভাবক সকলকেই করোনার স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে ৷ প্রত্যেককে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে ৷ নির্দিষ্ট সময় অন্তর হাত স্যানিটাইজ করতে হবে এবং অবশ্যই সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে৷ কোনও অভিভাবক স্কুলে যেতে না পারলে বিশেষ ব্যবস্থা নেবে স্কুল ৷ সেরকম বিশেষ ক্ষেত্রে মিড-ডে মিলের মতোই পড়ুয়ার বাড়িতে মার্কশিট পৌঁছে দিতে হবে স্কুলকে ৷

ছাত্রছাত্রী এবং তাদের অভিভাবকরা মাধ্যমিকের রেজাল্ট দেখতে লগ ইন করুন- www.news18bangla.com-এ ৷ এরপর রোল নম্বরের (Roll Number) পাশাপাশি জন্ম তারিখ (Date Of Birth ) দিন ৷ তারপর ক্লিক করুন চেক রেজাল্টে (Check Result)
এদিন সকাল দশটায় প্রকাশিত হল মাধ্যমিকের রেজাল্ট। আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ করেন পর্ষদ সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়। এবছর পাসের হার নতুন রেকর্ড গড়েছে। পাসের হার বেড়ে হয়েছে ৮৬.৩৪ শতাংশ। মেধাতালিকার প্রথম দশে স্থান পেয়েছেন ৮৪ জন ৷ সেখানে প্রথমবার নেই কলকাতার কোনও স্কুল ৷ Somraj Bandopadhyay
Published by:Elina Datta
First published:

লেটেস্ট খবর