• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • দাঁত-নখ বের করে করোনা ! দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২০ জনের, মোট মৃত বেড়ে ১৬৯

দাঁত-নখ বের করে করোনা ! দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২০ জনের, মোট মৃত বেড়ে ১৬৯

চিকিৎসকরা বলছেন, করোনা সংক্রমণের কারণে কাশি হলে তা সাধারণ কাশির থেকে কিছুটা আলাদা হয়৷ প্রথমত খুব জোরে কাশির বেগ আসে এবং তা একটানা অনেকক্ষণ স্থায়ী হয়৷ এমন কি, করোনা আক্রান্তদের এক ঘণ্টা ধরে কাশি হওয়াও অস্বাভাবিক নয়৷ এর সঙ্গে থাকে জ্বর৷

চিকিৎসকরা বলছেন, করোনা সংক্রমণের কারণে কাশি হলে তা সাধারণ কাশির থেকে কিছুটা আলাদা হয়৷ প্রথমত খুব জোরে কাশির বেগ আসে এবং তা একটানা অনেকক্ষণ স্থায়ী হয়৷ এমন কি, করোনা আক্রান্তদের এক ঘণ্টা ধরে কাশি হওয়াও অস্বাভাবিক নয়৷ এর সঙ্গে থাকে জ্বর৷

ক্রমশই আরও ভায়াবহ হয়ে উঠছে করোনার প্রকোপ

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: দেশে করোনায় মৃত বেড়ে ১৬৯। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত ২০। দেশে করোনা আক্রান্ত ৫ হাজার ৮৬৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৯১ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪৭৮ জন করোনা আক্রান্ত।

    গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আরও ১২ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে এখন রাজ্যে অ্যাক্টিভ রোগীর সংখ্যা ৭৫। সেই তালিকায় রয়েছেন হাওড়া জেলা হাসপাতালের সুপার এবং এক স্বাস্থ্যকর্মী। বৃহস্পতিবার নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী জানান, বাংলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বর্তমানে ৮০৷ রাজ্যে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ৫৷ গত ২৪ ঘণ্টায় ১২ জন নতুন করে করোনা আক্রান্ত বেড়েছে৷ তিনি সতর্ক করেন, 'আগামী দু সপ্তাহ খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ লকডাউন ভাঙা যাবে না৷ ভিড় এড়াতে সচেতন থাকতে হবে৷' লকডাউনে রোজগারে টান পড়েছে। বন্ধ হয়েছে বাস, ট্রেন-সহ পরিবহণ মাধ্যমও। পরিস্থিতি সামলাতে তাই ট্যাক্সির ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়ার ঘোষণা। জরুরি পরিষেবায় ট্যাক্সিকে ছাড় দেওয়া হবে। কয়েকটি জায়গায় ট্যাক্সি স্ট্যান্ড থাকবে। ট্যাক্সিতে চালক ছাড়াও ৩ জন যাত্রী থাকতে পারবেন। দোকান-বাজারে পণ্য সরবরাহেও ট্যাক্সিকে ছাড় দেওয়া হবে। লকডাউনে হোম ডেলিভারিকে ছাড় দেওয়ারও নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলনে সামাজিক দূরত্ব মেনে চা বাগান খোলারও নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। ১৫% কর্মীকে দিয়ে রোটেশন পদ্ধতিতে কাজ করানো হবে চা বাগানে কাজ। পাশাপাশি, রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি জানতে এবার নয়া অ্যাপ চালু করবে রাজ্য সরকার। কোন জায়গায় সংক্রমণ বেশি, সন্ধানে অ্যাপের মাধ্যমে সরাসরি তথ্য পৌঁছবে নবান্নে। করোনা মোকাবিলায় সেইসব জায়গায় বেশি নজরদারি করা হবে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে আশাকর্মীরা তথ্য জোগাড় করবেন। তাঁদের মোবাইলে থাকবে সন্ধানে অ্যাপ। অ্যাপের মাধ্যমে সরাসরি তথ্য পৌঁছবে নবান্নে। পরিস্থিতি অনুযায়ী সেইসব জায়গায় নজরদারি বাড়ানো হবে।

    করোনা মোকাবিলায় লড়াই দীর্ঘ। লকডাউনের মেয়াদও বাড়তে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে লকডাউনেও স্বাভাবিক জনজীবন সচল রাখতে উদ্যোগী প্রশাসন। মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ, জরুরি পরিষেবার ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হলেও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলুন।

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published: