corona virus btn
corona virus btn
Loading

জগন্নাথের রথনির্মাণের গুরুদায়িত্ব মাথায়, বাড়ি ছেড়ে আলাদাই থাকছেন ওঁরা

জগন্নাথের রথনির্মাণের গুরুদায়িত্ব মাথায়, বাড়ি ছেড়ে আলাদাই থাকছেন ওঁরা
শুরু হয়ে গেল রথনির্মাণের কাজ। ছবি-ANI

এখন গ্রিনজোনে রয়েছে পুরী। ভক্তদের প্রার্থনা আগামী ২১ জুন , রথযাত্রার দিনেও যাতে পুরীর মন্দির চত্বর বিপন্মুক্তই থাকে।

  • Share this:

#পুরী: করোনার কারণে সাধারণ ভক্তদের জন্য বন্ধ মন্দিরের দরজা। কিন্তু তা বলে তো সংস্কার আটকে থাকবে না। তাই লকডাউনের মধ্যেই পুরীর মন্দিরে রথ তৈরির কাজ শুরু হয়ে গেল।

জগন্নাথ মন্দিরের ডেভলপমেন্ট অফিসর অজয় জেনা সংবাদসংস্থাকে এ দিন বলেন,"কেন্দ্র রথ তৈরিতে শর্তসাপেক্ষ অনুমোদন দিয়েছে। মোট ৭২ জন এখন রথ তৈরির কাজ করছেন।" তিনি আরও জানান, সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকায় পরিবারের থেকে আলাদা রাখা হয়েছে এই রথসেবকদের। জগন্নাথ মন্দিরেরই অতিথিশালা ভক্তনিবাসে তিনটি আলাদা ভাগে তাঁদের রাখা হয়েছে।

জগন্নাঈথ মন্দির অ্যাডমিনিস্ট্রেশানের মুখ্য আধিকারিক বলেন, "আমরা ৮ মার্চ এই রথসেবকদের প্রস্তাব দিই বাড়ি থেকে এসে এখানে থেকে কাজ করতে হবে। তাঁরা সেই প্রস্তাব মেনে নেন। বিশেষ বাসে করে ওঁদের বাড়ি থেকে মন্দির সংলগ্ন রথখোলায় (এখানেই রথনির্মাণের কাজ চলে) নিয়ে আসা হয়।

লকডাউন বিধি উপেক্ষা না করে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেথে রথ তৈরির ব্যাপারে কেন্দ্রের তরফে সবুজ সংকেত এসেছিল বৃহস্পতিবার। কিন্তু প্রশ্ন ছিল, কাদের দিয়ে কাজ করানো হবে তাই নিয়ে। সেই বিষয়টির সুরাহা মেলায় মুখে সামান্য হাসি ফুটেছে পুরী মন্দিরের সেবায়েতদের মুখে। সমস্ত রথনির্মাতার কোভিড টেস্টও হয়েছে।

এখন গ্রিনজোনে রয়েছে পুরী। ভক্তদের প্রার্থনা আগামী ২১ জুন , রথযাত্রার দিনেও যাতে পুরীর মন্দির চত্বর বিপন্মুক্তই থাকে।

Published by: Arka Deb
First published: May 10, 2020, 7:01 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर