corona virus btn
corona virus btn
Loading

জটিল পরিস্থিতি! বর্ধমান মেডিক‌্যালে নতুন করে আক্রান্ত সাত চিকিৎসক

জটিল পরিস্থিতি! বর্ধমান মেডিক‌্যালে নতুন করে আক্রান্ত সাত চিকিৎসক

বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আক্রান্ত সাত চিকিৎসক মধ্যে ছ’‌জনই স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ।

  • Share this:

#বর্ধমান:‌ আতঙ্কের গ্রাসে এবার বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। একসঙ্গে এই হাসপাতালের সাত চিকিৎসক করোনা আক্রান্ত হলেন। ফলে তাঁদের সংস্পর্শে আশায় এক ঝাঁক চিকিৎসক নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠাতে হচ্ছে। সব মিলিয়ে করোনার উৎকণ্ঠার পাশাপাশি পরিষেবা কিভাবে চালু রাখা যাবে তা নিয়ে চিন্তিত বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। একের পর এক ডাক্তার কর্মী করোনা আক্রান্ত হওয়ায় চিকিৎসা করাতে এসে আতঙ্কিত রোগী ও তাঁদের আত্মীয়রা। হাসপাতালে এসে করোনা সংক্রমণ নিয়ে ঘরে ফেরার ভয় পাচ্ছেন তাঁরা। সংক্রমণ ঠেকাতে হাসপাতাল চত্ত্বর, ওয়ার্ডগুলিতে ভিড় নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি এলাকা জীবাণুমুক্ত করার ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আক্রান্ত সাত চিকিৎসক মধ্যে ছ’‌জনই স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ। একসঙ্গে একই বিভাগের এত জন চিকিৎসক অসুস্থ হয়ে পড়ায় প্রসূতি বিভাগ সহ জরুরী পরিষেবা চালু রাখার কঠিন হয়ে পড়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে। এর আগে এই হাসপাতালে আর এক স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। তিনি এখন বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। হাসপাতালে রোগী দেখার পাশাপাশি কয়েকটি নার্সিংহোমেও তিনি রোগী দেখেছিলেন বলে জানা গিয়েছে। করোনা পজিটিভ হওয়ার আগে তিনি নিয়মিত প্রাইভেট প্র্যাকটিস করেছেন বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর মিলেছে। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই নতুন করে ছ জন স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক করোনা আক্রান্ত হওয়ায় উৎকণ্ঠায় হাসপাতালের অন্যান্য চিকিৎসক নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা।

ওই ৬ স্ত্রী রোগ বিশেষজ্ঞ ছাড়াও অস্থি বিভাগের এক চিকিৎসক নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এর আগে বর্ধমান মেডিক্যালের আটজন চিকিৎসক করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। সে কারণে হাসপাতালে মনোবিদ্যা বিভাগ ও ফিজিকাল মেডিসিন বিভাগে রোগী ভর্তি ইতিমধ্যেই বন্ধ রাখা হয়েছে। আবার সাত চিকিৎসক করোনা আক্রান্ত হওয়ায় তাঁদের সংস্পর্শে আসা কুড়ি জন চিকিৎসক ও নার্সকে হোম কোয়ারান্টিনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। তাঁদেরও লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে।

Saradindu Ghosh

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: July 20, 2020, 6:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर