corona virus btn
corona virus btn
Loading

প্রধানমন্ত্রীর শরীরী ভাষা দেখে মনে হয়েছে লকডাউন অনেকদিন চলবে: মমতা

প্রধানমন্ত্রীর শরীরী ভাষা দেখে মনে হয়েছে লকডাউন অনেকদিন চলবে: মমতা
Mamata Banerjee, Narendra Modi

সোমবার সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ ভিডিও কনফারেন্সের বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরাই উপস্থিত ছিলেন ৷

  • Share this:

#কলকাতা: ভিডিয়ো বৈঠকের পর এমনটাই মনে করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ সোমবার সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ ভিডিও কনফারেন্সের বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরাই উপস্থিত ছিলেন ৷ কেন্দ্রের তরফে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং প্রমুখ৷ ৩ মে পর্যন্ত দেশজুড়ে লকডাউন৷ তারপর কী হবে? কী ভাবে লকডাউনের এগজিট প্ল্যান? করোনা ভাইরাসে এই মুহূর্তে রাজ্যগুলির পরিস্থিতি কী? এই যাবতীয় বিষয় নিয়েই হয় আলোচনা ৷

লকডাউনের প্রশ্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘লকডাউন বাড়ানো কেন্দ্রের ব্যাপার ৷ তবে রাজ্য ২১ মে অবধি লকডাউনের পক্ষপাতী। তবে কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দিতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর শরীরী ভাষা দেখে মনে হয়েছে লকডাউন অনেকদিন চলবে৷’ একইসঙ্গে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এদিন ক্ষোভও উগড়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী ৷ বলেন, ‘কেন্দ্রের বক্তব্যে অস্পষ্টতা রয়েছে। কেন্দ্র একদিকে বলছে, লকডাউন ভালোভাবে মানতে হবে। আবার নির্দেশিকায় বলছে, কিছুক্ষেত্রে দোকানও খুলতে হবে। দোকান খুললে লোকে ভিড় জমাবে তাহলে লকডাউন মানা হবে কিভাবে! কেন্দ্রের বক্তব্যে তো কোনও স্পষ্টতা নেই। এর ফলে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।’

নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, কেন্দ্রের কাছ থেকে কিছু বিষয় স্পষ্ট করে জানতে চেয়েছে রাজ্য সরকার ৷ সে বিষয়ে স্পষ্ট করা হলেই ৷ নিজেদের মধ্যে আলোচনার পর পরশু দিন অর্থাৎ বুধবার লকডাউনের মেয়াদ বা করোনা ঠেকাতে ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে আরও সুস্পষ্টভাবে জানানো হবে ৷

লকডাউন নিয়ে ঘোষণা নয়, তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সোমবার নবান্নের সাংবাদিক বৈঠক থেকে সুস্পষ্টভাবে জানিয়ে দেন, ২১ মে অবধি রাজ্যকে তিন ভাগে ভাগ করে নজরদারি চালানো হবে ৷ রেড, গ্রিন ও অরেঞ্জ জোনে গোটা রাজ্যের সংক্রামিত এলাকাগুলিকে ভাগ করে একটি তালিকা ইতিমধ্যেই তৈরি করেছে রাজ্য সরকার ৷ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘তিন জোনের ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা চাই। স্বাস্থ্য দফতর এই নিয়ে শীঘ্রই নির্দেশিকা জারি করবে।’

লকডাউন নিয়ে কেন্দ্রের ঘোষণা ছাড়া আপাতত মুখ্যমন্ত্রী জোনভিত্তিক নজরদারিতে রাজ্যে করোনা মোকাবিলার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন ৷ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘রেড জোনগুলিতে কঠোরভাবে লকডাউন মানতে হবে। অরেঞ্জ জোনগুলিতে কিছু ছাড় দেওয়া হবে। গ্রিন জোনগুলিতে আরও বেশি ছাড় দেওয়া হবে।’ একইসঙ্গে সাংবাদিকদের হাতে এদিন তিনি জেলাগুলির জোনভিত্তিক তালিকাও তুলে দেন ৷ রেড জোনে থাকা সাধারণ মানুষের কাছে মুখ্যমন্ত্রীর আর্জি, ‘আপনারা দয়া করে ঘর থেকে বেরবেন না ৷ করোনা রুখতে সহযোগিতা করুন ৷ খাবার না হয় পুলিশ পৌঁছে দিয়ে আসবে ৷’

এছাড়াও, এতদিন অত্যাবশকীয় হোম ডেলিভারিতে ছাড় দেওয়ার কথা বলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্য়ায়। সোমবার ঘোষণা করলেন, জরুরি নয়, এবার থেকে এমন সব জিনিসেরও হোম ডেলিভারিতে ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে রাজ্য সরকার।

Published by: Elina Datta
First published: April 27, 2020, 6:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर