করোনা ভাইরাস

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা যুদ্ধে বহু রোগীর জীবন বাঁচানো চিকিৎসকের মৃত্যু করোনাতেই, কেজরিওয়াল দিলেন ১ কোটি টাকা

করোনা যুদ্ধে বহু রোগীর জীবন বাঁচানো চিকিৎসকের মৃত্যু করোনাতেই, কেজরিওয়াল দিলেন ১ কোটি টাকা
Photo- File

করোনা যোদ্ধাদের এই লড়াই ভরসা করেই আশ্বস্ত রয়েছে দেশ

  • Share this:

#নয়াদিল্লি:  করোনা যোদ্ধার জীবনাবসান মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েই ৷ করোনা অতিমারী শুরু হওয়ার পর থেকেই নিজের নেওয়া চিকিৎসকের শপথকে মেনে নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন করোনা রোগীদের সুস্থ করার কাজে ৷ আর এই কাজ করতে করতেই মারণ করোনা থাবা বসায় লোকনায়ক জয়প্রকাশ হাসপাতালের অভিজ্ঞ চিকিৎসক অসীম গুপ্তা ৷ অনেক রোগীকে করোনামুক্ত করে বাড়ি ফিরলেও নিজে আর মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে জিতেত পারেননি ৷

চিকিৎসক অসীম গুপ্তার মৃত্যু হয় ম্যাক্স হাসপাতালে ৷ এরপর তাঁর শেষকৃত্য হয় নিগম বাধে ঘাটে ৷ এই শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন তাঁর চিকিৎসক স্ত্রী নিরুপমা , ছোট ছেলে আরিয়ান ও তাঁর সহকর্মীরা হাজির ছিলেন ৷ তিনি নিজে হাতে করে মাস্ক ও স্যানেটাইজারের যোগানের বিষয়টি দেখতেন ৷ তিনি অ্যানাস্থেসিস্ট ছিলেন ৷

এই অসীম গুপ্তার মৃত্যুর পর দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল তাঁর পরিবারের হাতে ১ কোটি টাকা তুলে দেন ৷ কেজরিওয়াল জানিয়েছেন অসীম গুপ্তা করোনার রোগীদের চিকিৎসা করতে করতে শহীদ হয়েছেন ৷ কেজরিওয়াল আরও জানিয়েছেন , নিজের কথা না ভেবে সব সময় করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য নিজের প্রাণ উৎসর্গ করেছেন এই চিকিৎসক ৷ এই ধরণের লড়াইতে চিকিৎসকরাই সকলেই বড় ভরসা ৷ ডক্টর গুপ্তার এরকম মৃত্যুতে গভীর শোকের ছায়া সব মহলে ৷

ডক্টর গুপ্তার চিকিৎসক স্ত্রী পরিবার নিয়ে নয়ডার বাড়িতে রয়েছেন ৷ সেখানেই তাঁকে ১ কোটি টাকার চেক পৌঁছে দেওয়া হয় ৷ ডক্টর নিরুপমাকেও দিল্লির কোনও হাসপাতালে চাকরির ব্যবস্থা করার কথাও জানিয়েছেন কেজরিওয়াল ৷

ডক্টর গুপ্তা গত শনিবার করোনার বিরুদ্ধে নিজের জীবনে-র যুদ্ধ হেরে ়যান ৷ ম্যাক্স হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি ৷  করোনা সংক্রমিতদের চিকিৎসা করতে করতেই সংক্রমণ ছড়িয়েছিল তাঁর শরীরে ৷ তাঁর চিকিৎসা চলাকালীন তাঁকে আইসিইউ তে রাখা হয়েছিল ৷ এদিকে চিকিৎসকের পরিবারকে ১ কোটি টাকা দিলেও অরবিন্দ কেজরিওয়াল জানিয়েছেন কোনও জীবনের দাম দেওয়া সম্ভব নয়৷ এটা শুধুমাত্রই এক যোদ্ধাকে সম্মান জানানো ৷

Published by: Debalina Datta
First published: July 3, 2020, 5:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर