corona virus btn
corona virus btn
Loading

মৃত সিআইএসএফ জওয়ান, কলকাতা জাদুঘরেও করোনার থাবা

মৃত সিআইএসএফ জওয়ান, কলকাতা জাদুঘরেও করোনার থাবা
কলকাতা জাদুঘেও করোনা আতঙ্ক৷

লকডাউনে জাদুঘর দর্শকদের জন্য বন্ধ থাকলেও অফিস খোলা ছিল। করোনা আতঙ্কে এবার জাদুঘর পুরোপুরি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো৷

  • Share this:

#কলকাতা: এবার কলকাতা জাদুঘরে করোনার থাবা৷ মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হলো এক সিআইএসএফ জওয়ানের৷জাদুঘরে কর্মরত বর্ধমানের কালনার বাসিন্দা সিআইএসএফ এর এক সাব-ইন্সপেক্টর বুধবার অসুস্থ হয়ে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হন। মেডিক্যাল কলেজের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা এই সিআইএসএফ জওয়ানের শারীরিক অবস্থা দেখে করোনা উপসর্গ থাকায় তাঁকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখেন। তাঁর লালা রসের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয় স্কুল অফ ট্রপিক্যাল মেডিসিনে। এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার রাতেওই  সিআইএসএফ জওয়ানের মৃত্যু হয়। শুক্রবার সকালে তার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট এলে দেখা যায়,  তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন।

সিআইএসএফ জওয়ানের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ পাওয়ার পরই দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করে কলকাতা জাদুঘর কর্তৃপক্ষ৷ জাদুঘরে কর্মরত সিআইএসএফ-এর বাকি ৩৩ জন কর্মী অফিসার জওয়ানকে কেয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। জাদুঘরে কর্মরত অন্যান্য কর্মীদের অফিসে আসতে বারণ করা হয়। লকডাউনে জাদুঘর দর্শকদের জন্য বন্ধ থাকলেও অফিস খোলা ছিল। করোনা আতঙ্কে এবার জাদুঘর পুরোপুরি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো৷ মৃত এই সিআইএসএফ- এর সাব ইন্সপেক্টরের সংস্পর্শে যাঁরা এসেছিলেন, তাঁদের প্রত্যেককে আলাদা করে চিহ্নিত করা হচ্ছে। এঁদের প্রত্যেকের করোনা পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওই সিআইএসএফ জওয়ানের পরিবারকেও সতর্ক করা হয়েছে৷

প্রসঙ্গত এর আগে রাজ্যে ৬ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর জওয়ান করোনা আক্রান্ত হন। রাজ্যের সাম্প্রতিক করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে যে কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক দল এসেছিল, তাঁদের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন ওই বিএসএফ জওয়ানরা। এই ঘটনার পর আবারও কলকাতা জাদুঘরে সিআইএসএফ- এর সাব ইন্সপেক্টরের মৃত্যুর পর করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরে যথেষ্ট চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এর আগে দিল্লিতেও সিআইএসএফ- এর ব্যারাকে বেশ কয়েকজন সিআইএসএফ জওয়ান করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। ফলে সীমান্তরক্ষী বাহিনী থেকে শুরু করে নিরাপত্তা বিভিন্ন কাজে যে সমস্ত জওয়ানরা কর্মরত রয়েছেন, তাঁরা প্রত্যেকে যাতে আরো বেশি করে সতর্কতা ও সুরক্ষার সঙ্গে কাজ করেন, সেই পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

AVIJIT CHANDA

First published: May 8, 2020, 3:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर