corona virus btn
corona virus btn
Loading

কারণ না জানালে রাজ্যে ঘুরতে পারবে না কেন্দ্রীয় দল, কড়া বার্তা মুখ্যসচিবের

কারণ না জানালে রাজ্যে ঘুরতে পারবে না কেন্দ্রীয় দল, কড়া বার্তা মুখ্যসচিবের
কড়া বার্তা নবান্নর৷ PHOTO- FILE

এর আগে কেন্দ্রের প্রতিনিধি দল পাঠানো নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও৷

  • Share this:
#কলকাতা: প্রতিনিধি দল পাঠানো নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে কেন্দ্রের সংঘাত স্পষ্ট৷ রাজ্যেকে না জানিয়েই কেন্দ্রের তরফে প্রতিনিধি দল পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে এ দিন নবান্নে অভিযোগ করেন রাজীব সিনহা৷ তাঁর চাঞ্চল্যকর অভিযোগ, তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের চিঠি পাওয়ার পনেরো মিনিটের মধ্যেই কেন্দ্রের একটি প্রতিনিধি দল কলকাতা বিমানবন্দরে পৌঁছে যায়৷ মুখ্যসচিবের আরও দাবি, রাজ্যে এসেও রাজ্য সরকারের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ না করেই বিএসএফ এবং এসএসবি-র মতো কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে বিভিন্ন এলাকায় যাওয়ার চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা৷ যদিও সরকারকে রাজ্যে আসার কারণ স্পষ্ট করে না জানালে রাজ্যের কোথাও কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যদের ঘুরতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন মুখ্যসচিব৷ রাজীব সিনহার এই বার্তার কিছুক্ষণের মধ্যেই নবান্নে পৌঁছন কেন্দ্রীয় দলের সদস্যরা৷

এর আগে কেন্দ্রের প্রতিনিধি দল পাঠানো নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও৷ কীসের ভিত্তিতে এই প্রতিনিধি দল পাঠানো হচ্ছে, তা জানানোর জন্য টুইটারে প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ রাজ্যের লকডাউন পরস্থিতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে এসে পৌঁছেছে দু'টি কেন্দ্রীয়

প্রতিনিধি দল৷ এ দিনই কলকাতার এবং বাগডোগরায় এসে পৌঁছেছেন প্রতিনিদি দলের সদস্যরা৷ প্রতিনিধি দলে রয়েছেন বিভিন্ন কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের প্রতিনিধি এবং বিশেষজ্ঞরা৷ কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গ এবং উত্তরবঙ্গের মোট সাতটি জেলায় ঘুরবেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা৷জানা গিয়েছে, প্রতিটি প্রতিনিধি দলে পাঁচজন করে সদস্য রয়েছেন৷ রাজ্যে লকডাউন ঠিক মতো মানা হচ্ছে না, এই অভিযোগ তুলেই প্রতিনিধি দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷

মুখ্যসচিব এ দিন অভিযোগ করে বলেন, 'আমার কাছে কেন্দ্রীয় সরকারের চিঠি এসে পৌঁছনোর পনেরো মিনিটের মধ্যে কলকাতায় একটি দল এসে পৌঁছেছে৷ অর্থাৎ আগে থেকে আমাদের না জানিয়েই দিল্লি থেকে প্রতিনিধি দলকে রওনা করিয়ে দেওয়া হয়েছিল৷ কলকাতায় যে দলটি এসে পৌঁছেছে, তাঁদের আমি বলেছি আমার সঙ্গে এসে দেখা করতে৷ তা না করে ওনারা বিএসএফ, এসএসবি নিয়ে বিভিন্ন এলাকায় চলে যাচ্ছে৷ এমন তো নয় যে আমরা কিছু লুকোচ্ছি৷ আমাদের সঙ্গে আলোচনা করার পর যদি মনে হয় যে কোথাও যাওয়া প্রয়োজন, নিশ্চয়ই তাঁরা যাবেন৷ কিন্তু আমাদের স্পষ্ট করে কারণ না জানালে আমরা রাজ্যের কোথাও ঘুরতে দেব না৷'

যে সাতটি জেলার বিভিন্ন এলাকার তালিকা তৈরি করে কেন্দ্রীয় দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তা কীসের ভিত্তিতে বাছাই করা হয়েছে, তা নিয়েও বিস্ময় প্রকাশ করেন মুখ্যসচিব৷ তাঁর দাবি, পূর্ব মেদিনীপুর, দার্জিলিং, কালিম্পংয়ের মতো যে এলাকাগুলিতে প্রতিনিধি দলের যাওয়ার কথা, সেখানে পরিস্থিতি যথেষ্টই নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে৷ অনেকদিন ধরেই সেখানে নতুন সংক্রমণের খবর নেই বলে দাবি করেন মুখ্যসচিব৷ তবে কেন্দ্রের সঙ্গে কোনও সংঘাত নেই বলে দাবি করেন মুখ্যসচিব৷

 
Published by: Debamoy Ghosh
First published: April 20, 2020, 6:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर