করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষের

করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষের
নারায়ণ হাজরা চৌধুরী

বৃহস্পতিবার রাতে বর্ধমানের করোনা হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর। এই ঘটনায় তাঁর পরিবার ও পরিচিত মহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ নারায়ণ হাজরা চৌধুরী করোনা আক্রান্ত হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন। বৃহস্পতিবার রাতে বর্ধমানের করোনা হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর। এই ঘটনায় তাঁর পরিবার ও পরিচিত মহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। প্রবীণ এই কর্মাধ্যক্ষের মৃত্যুর খবর পেয়ে করোনা হাসপাতালে যান পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধারা। সেখানে প্রবীণ এই কর্মাধ্যক্ষের মৃতদেহে শেষ শ্রদ্ধা জানান। তিনি বলেন, দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন নারায়ন বাবু। তাঁর মৃত্যুতে আমাদের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল।

পুজোর কয়েকদিন আগে থেকেই জ্বরে ভুগছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সাধারণ সম্পাদক নারায়ণবাবু। জ্বর না কমায় এবং উপসর্গ বাড়তে থাকায় তিনি করোনা পরীক্ষা করান। তাতেই তাঁর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট মেলে। দশমীর পর তিনি বর্ধমানের দু-নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে বামচাঁদাইপুরে করোনা হাসপাতালে ভর্তি হন। দশমীর রাতে সেখানে ভর্তি হন জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক তথা পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ উত্তম সেনগুপ্তও। তাঁর স্ত্রী পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী শিখা দত্ত সেনগুপ্তও একই সঙ্গে করোনা আক্রান্ত হয়ে কোভিড হাসপাতালে ভর্তি হন। উত্তমবাবুর গাড়ির চালক থেকে শুরু করে ঘনিষ্ঠ বেশ কয়েকজন করোনা আক্রান্ত হয়ে ওই হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

করোনা হাসপাতালে প্রথম দিকে আপাত দৃষ্টিতে ভালই ছিলেন পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ নারায়ন হাজরা চৌধুরী। পরিচিতদের সঙ্গে গল্পগুজব করছিলেন তিনি। কিন্তু বুধবার বেলার পর থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়। তারপর থেকে ক্রমশই তাঁর অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। অবশেষে বৃহস্পতিবার রাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। চার দশকেরও বেশি সময় ধরে ডানপন্থী রাজনীতির সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত নারায়ণবাবু। তাঁর আকস্মিক মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ দলের কর্মী সমর্থক ও তাঁর অনুগামীরা।

শরদিন্দু ঘোষ

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: October 30, 2020, 11:25 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर