corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনের মধ্যেই ত্রাণ নিয়ে কাজিয়া পুরসভায়, কাউন্সিলরদের মধ্যে প্রকাশ্যে হৈ-হট্টগোল

লকডাউনের মধ্যেই ত্রাণ নিয়ে কাজিয়া পুরসভায়, কাউন্সিলরদের মধ্যে প্রকাশ্যে হৈ-হট্টগোল
ফাইল ছবি

বাকবিতন্ডা জড়িয়ে পড়েন ইংরেজবাজারের পুর-চেয়ারম্যান নীহার রঞ্জন ঘোষ এবং প্রাক্তন দুই চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী ও নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি।

  • Share this:

#ইংরেজবাজারঃ লকডাউনের মধ্যেই ত্রাণ নিয়ে কাজিয়া মালদহের ইংরেজবাজার পুরসভার। কাউন্সিলরদের মধ্যে প্রকাশ্যেই হৈ-হট্টগোল। নিজেদের মধ্যে বিবাদ বিতর্ক। ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় পুরসভায়। বাকবিতন্ডা জড়িয়ে পড়েন ইংরেজবাজারের পুর-চেয়ারম্যান নীহার রঞ্জন ঘোষ এবং প্রাক্তন দুই চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী ও নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি। পুরসভার বিরুদ্ধে চুপিসারে ত্রাণ সামগ্রী সরানোর অভিযোগ তোলেন কাউন্সিলররা। পুরসভার ত্রাণ বিভাগের হিসাবপত্র দেখতে চান তাঁরা। গোলমালের জেরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে পুরসভায়।

বিক্ষুব্ধ কাউন্সিলরদের অভিযোগ ইংরেজবাজার পুরসভায় ত্রাণ বিলিতে কারচুপি হচ্ছে। অধিকাংশ কাউন্সিলরকে অন্ধকারে রেখে পুরসভা থেকে গরিব মানুষের জন্য বরাদ্দ জামা, কাপড়, ত্রিপল-সহ অন্যান্য সামগ্রী পাচার হচ্ছে। বিক্ষুব্ধ কাউন্সিলররা পুরসভায় ঢুকে রিলিফ সেকশনের ঘরের সামনে ধর্না-বিক্ষোভে বসে পড়েন। গোলমালের খবর পেয়ে এলাকায় পৌঁছন পুরপ্রধান নীহাররঞ্জন ঘোষ। এরপর পুরসভার কর্মীদের সামনে দু'পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়ে যায়। বিক্ষুব্ধ কাউন্সিলরদের অভিযোগ, পুরপ্রধান ত্রাণ বিলি সংক্রান্ত কোন হিসেব দিতে পারেননি পুরপ্রধান। শুধু তাই নয়, ত্রাণ বিলিতে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে। ত্রাণ বিলি সংক্রান্ত কোন রেজিস্টার নেই পুরসভায়।

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেন পুরপ্রধান। নিহারবাবুর পাল্টা যুক্তি, বোর্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার মুখে। লকডাউনে প্রচুর মানুষের ত্রাণের প্রয়োজন হয়ে পড়েছে। তাই পুরসভায় যেসব ত্রাণ মজুত রয়েছে তা কাউন্সিলরদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। বহুদিন আগে থেকেই এসব ত্রাণসামগ্রী মজুত থাকায় সঠিক হিসেব নেই বলে দাবি পুরপ্রধানের। শুধু তাই নয়, বুধবার পর্যন্ত পুরসভার সাতজন কাউন্সিলরের বাড়িতে ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়েছে বলে এদিন পাল্টা নথি পেশ করেন করেন পুরপ্রধান।

Published by: Shubhagata Dey
First published: May 6, 2020, 6:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर