corona virus btn
corona virus btn
Loading

কেন্দ্রীয় দল পৌঁছনোর আগেই পুরনো কেন্দ্রে চন্দ্রিমা, 'সুপার লকডাউন' দেখলেন পর্যবেক্ষকরা

কেন্দ্রীয় দল পৌঁছনোর আগেই পুরনো কেন্দ্রে চন্দ্রিমা, 'সুপার লকডাউন' দেখলেন পর্যবেক্ষকরা
স্বাস্থ্যপ্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। ফাইল চিত্র

ব্যাপক টহলদারির পরে পার্টি অফিসে বসে যখন চায়ে চুমুক দিচ্ছেন, তখন খবর এল, বারাসত হয়ে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল বিরাটি পৌঁছল।

  • Share this:

#কলকাতা: কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদল তখন সবেমাত্র বেলেঘাটা পেড়িয়ে সল্টলেকের এক বেসরকারি কোভিড হাসপাতালে গিয়েছে। সদস্যরা খতিয়ে দেখছেন চিকিৎসা ব্যবস্থা। কথা বলছেন চিকিৎসকদের সঙ্গে। তাঁদের পরবর্তী পদক্ষেপটি বুঝতে পেরে আগেভাগেই বিরাটি পৌঁছে গেলেন মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য ।

বিরাটি ,উত্তর দমদমে তখন মুষল ধরে বৃষ্টি ।দোকানপাট দু' একটা তখনও খোলা। মন্ত্রী তখন গাড়ি থেকেই নির্দেশ দিচ্ছেন সব বন্ধ করার। লকডাউন ভাঙার লোকও পাওয়া গেল রাস্তাতেই। মাস্ক ছাড়াই নির্বিকার ঘুরে বেড়াচ্ছেন তাঁরা। এবার থামল মন্ত্রীর গাড়ি। রীতিমতো হুঙ্কার দিয়ে বললেন, "জানেন না মাস্ক না থাকলে পুলিশ ব্যবস্থা নেবে?" অবশ্য বোধদয়ের অপেক্ষাও করলেন না তিনি। নিজেই মাস্ক তুলে দিলেন ওই পথচারীদের হাতে।

ততক্ষনে খবর রটে গিয়েছে, মন্ত্রী এসেছেন ।রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছেন তিনি। বিরাটি পার করে তাঁর গন্তব্য এবার খলিসাকোটা ।দু'জন কোভিড আক্রান্ত সেখানে । খানিকটা পেরিয়েই মুসলিম অঞ্চল। চন্দ্রিমার গাড়ি দেখে দৌড় লাগালেন কেউ কেউ ।কারণ মুখে মাস্ক নেই। একরকম বাধ্য হয়েই গাড়ি থেকে নামলেন চন্দ্রিমা ।খানিক বকাঝকার পর শুরু হল মাস্কবিলি। দ্রুত কাজ সেরেই নিজের পুরোনো কেন্দ্র পেরিয়ে চলে গেলেন নিউ ব্যারাকপুর ।

ব্যাপক টহলদারির পরে পার্টি অফিসে বসে যখন চায়ে চুমুক দিচ্ছেন, তখন খবর এল, বারাসত হয়ে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল বিরাটি পৌঁছল। স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর তৎপরতায় বিরাটিতে ততক্ষণে কমপ্লিট লকডাউন। রাস্তা তো দূর , বারান্দা ব্যালকনিতেও একটি মানুষ নেই।

শিবাচলে পৌঁছে প্রথম মানুষের দেখা পেল কেন্দ্রীয় দল। দোতলার বারান্দায় দাঁড়িয়ে ছিল এক কিশোরী।তাঁকেই হাতের কাছে পেয়ে প্রতিনিধি দল প্রশ্ন করল, রেশন ঠিক মতো মিলছে কিনা ।মেয়েট ঘাড় নেড়ে জানাল, মিলছে ।এরপরের রুটম্যাপ- উত্তর দমদম পেরিয়ে আলম বাজার , দমদম , পাইকপাড়া। সর্বত্র ঘুরল প্রতিনিধি দল।মোটের ওপর লোকডাউন সব জায়গায় । বৃষ্টির পরে ঝিমিয়ে পরা গৃহবন্দি পাড়াগুলি ততক্ষণে দরজায় খিল এঁটেছে ।

করোনা পরিস্থিতি সরেজমিনে দেখতে পাড়ায় ঘুরছে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। উত্তর চব্বিশ পরগনা এ রাজ্যের কোভিড স্পর্শকাতর। তাই মঙ্গলবার এই আন্তঃমন্ত্রক দলের সেখানে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিলই। কিন্তু চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য হঠাৎ পুরনো কেন্দ্রে?দলের কর্মীর কথায়, "গতবার হেরে গেলেও দিদি পুরনো বিধান সভা ভোলেননি। বাইরের লোক দেখতে আসবে।উঁচু-নীচু দেখলে রাজ্যের বদনাম হবে,তাই সকাল থেকে নিজেই নেমে পড়লেন ময়দানে , বুঝলেন! "

Published by: Arka Deb
First published: April 28, 2020, 5:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर