Home /News /coronavirus-latest-news /
ফলে গিয়েছে ভারতীয় শাস্ত্রজ্ঞদের ভবিষ্যবানী!‌ নারদ সংহিতায় বলা আছে কবে থামবে করোনা

ফলে গিয়েছে ভারতীয় শাস্ত্রজ্ঞদের ভবিষ্যবানী!‌ নারদ সংহিতায় বলা আছে কবে থামবে করোনা

২০১৯ সালের শেষ সূর্য গ্রহণের পর থেকে পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়বে এক মারণ মহামারী। পূর্বভদ্র নক্ষত্র এই সময়ে আকাশে দেখা দেবে।

  • Share this:

    #‌নয়া দিল্লি:‌ অনেকটা নস্ত্রাদামুেস‌র মতো। ঠিক যেন অক্ষরে অক্ষরে ফলে গিয়েছে ভারতীয় প্রাচীন পণ্ডিতদের কথা। নারদ সংহিতায় বলা আছে, এক অতিমারীর কথা। সেই অতিমারীর সঙ্গে বর্তমান করোনার এমন অমোঘ মিল পেয়েছেন জ্যোতিষবিদরা যে তা অবাক করা।

    নারদ সংহিতায় বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের শেষ সূর্য গ্রহণের পর থেকে পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়বে এক মারণ মহামারী। পূর্বভদ্র নক্ষত্র এই সময়ে আকাশে দেখা দেবে। আর তারপরই ছড়িয়ে পড়বে করোনা। সত্যিই তাই, ২০১৯ সালের ২৬ ডিসেম্বর শেষ সূর্যগ্রহণের সাক্ষী ছিল বিশ্ব। আর তারপরই, ৩১ ডিসেম্বর প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগীর সন্ধান পায় চিন। অর্থাৎ নারদ সংহিতার কথা একেবারে হাতে নাতে ফলে যাচ্ছে।

    একই ভাবে এই সংহিতায় বলা ছিল, কবে থামবে করোনা ভাইরাস। বলা আছে, এই মহামারী পৃথিবীতে চলতে পারে তিন মাস থেকে সাত মাস পর্যন্ত। অর্থাৎ, প্রায় জুলাই মাস পর্যন্ত এই ভাইরাসের আতঙ্ক তাড়া করে বেড়াবে পৃথিবীকে। চাল লাইনের ছন্দ মেলানো স্তবকে এই সংহিতায় বর্ণনা করে হয়েছে ভবিষ্যতের কথা।

    অনেকেই অবাক হচ্ছেই এই শাস্ত্রের কথা জেনে। আজ থেকে প্রায় একহাজার বছর পূর্বে নারদ সংহিতার রচনা করা হয়েছিল বলে মনে করা হয়। জ্যোতিষ চর্চার আদি গ্রন্থ হিসাবেও এটিকে গণ্য করেন অনেকে। ফলে শুধু পাশ্চাত্যের ভবিষ্যাবানী নয়, পূর্বের দেশ ভারতেও অনেকদিন আগেই করোনার কথা বলা হয়েছিল বলে মনে করা হচ্ছে।

    First published:

    Tags: Coronavirus, Naradsanghita, Pandemic

    পরবর্তী খবর