corona virus btn
corona virus btn
Loading

সব নতুন প্রকল্প স্থগিত, করোনার ধাক্কায় বড় সিদ্ধান্ত মোদি সরকারের

সব নতুন প্রকল্প স্থগিত, করোনার ধাক্কায় বড় সিদ্ধান্ত মোদি সরকারের
খরচে রাশ টানল কেন্দ্র৷

করোনা সঙ্কটের কথা মাথায় রেখে চালু করা 'প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনা' এবং 'আত্মনির্ভর ভারত'- এর সঙ্গে যুক্ত প্রকল্পগুলি চালু থাকছে৷

  • Share this:
 

#নয়াদিল্লি: করোনা মহামারির জোর ধাক্কা লেগেছে দেশের অর্থনীতিতে৷ সংক্রমণে রাশ টানা না গেলেও পরিস্থিতির চাপে ধীরে ধীরে হলেও স্বাভাবিক হচ্ছে সবকিছু৷ এই পরিস্থিতিতে খরচে লাগাম টানতে বাধ্য হলো কেন্দ্রীয় সরকার৷ আগামী বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত আপাতত সমস্ত নতুন জনমুখী প্রকল্প বন্ধ রাখা হচ্ছে৷ তবে করোনা সঙ্কটের কথা মাথায় রেখে চালু করা 'প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনা' এবং 'আত্মনির্ভর ভারত'- এর সঙ্গে যুক্ত প্রকল্পগুলি চালু থাকছে৷

গত ৪ জুন এই সংক্রান্ত নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক৷ সেই নির্দেশিকা অনুযায়ী ২০২১ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত নতুন কোনও প্রকল্প শুরু হবে না৷ ২০২০-২১ সালের জন্য যে প্রকল্পগুলি অনুমোদিত বা অর্থ বরাদ্দ হয়েছিল, সেগুলির ক্ষেত্রেই এই নির্দেশিকা কার্যকর করা হবে৷ রাজস্ব আদায় কমে যাওয়ার কারণ দেখিয়েই অর্থমন্ত্রকের Expenditure Department এই নির্দেশিকা জারি করেছে৷ প্রতিটি মন্ত্রক এবং দফতরকে ৩০ জুনের মধ্যে নতুন প্রকল্পের তালিকা জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷

করোনার জেরে যে আর্থিক সঙ্কট তৈরি হয়েছে তা থেকে দেশবাসীকে রক্ষা করতে এবং আত্মনির্ভর করে তুলতে ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে নরেন্দ্র মোদি সরকার৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই প্যাকেজ নিয়ে দেশবাসীকে লেখা চিঠিতে দাবি করেছিলেন, করোনা মহামারির মধ্যে গোটা বিশ্বের সামনে অর্থনীতির পুনরুজ্জীবনের এক উদাহরণ তৈরি করেছে মোদি সরকার৷ যদিও সরকারের এই দাবি মানতে নারাজ বিরোধীরা৷

আত্মনির্ভর ভারত অভিযানের আওতায় দেশের সমস্ত শ্রেণির মানুষের কথা ভেবেই অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে বলে দাবি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাঁর লেখা খোলা চিঠিতে বলেন, করোনার ধাক্কা সামলে অর্থনীতি কীভাবে ঘুরে দাঁড়াবে, তা নিয়ে বিশ্বজুড়ে চর্চা চলছে৷ করোনা পরবর্তী সময়ে অর্থনীতিকে ফের সঠিক দিশা দেখানোই এখন বিশ্বের সামনে সবথেকে কঠিন চ্যালেঞ্জ৷

 
Published by: Debamoy Ghosh
First published: June 5, 2020, 3:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर