corona virus btn
corona virus btn
Loading

ছিলেন বাস মালিক, লকডাউনের বাজারে তিনি এখন সবজি বিক্রেতা 

ছিলেন বাস মালিক, লকডাউনের বাজারে তিনি এখন সবজি বিক্রেতা 
Bus owner turns vegetable seller in lockdown

এহেন সহদেববাবুকেই এখন দোরে দোরে বলতে হচ্ছে তার কাছ থেকে পাড়ার সবাই যেন সবজি নেন। প্রথমদিকে, কেউ কিছু পাত্তা না দিলেও, পরবর্তী সময় কাকদ্বীপ বাস স্ট্যান্ড কাছেই তিনি বাজার বিক্রি করতে বসেছেন।

  • Share this:

#দক্ষিণ ২৪পরগনা: ছিলেন বাসের মালিক। হয়ে গেলেন সবজি বিক্রেতা। গল্প নয় সত্যি। লকডাউনের জেরে এভাবেই পেশা বদলে ফেললেন পরিবহণ শিল্পের সাথে যুক্ত এক ব্যক্তি। কাকদ্বীপের বাসিন্দা সহদেব বাগ। লট ৮ থেকে কলকাতা অবধি চলে তার বাস। ডায়মন্ডহারবার লাইনে তিনি বেশ পরিচিত বাস সংগঠনের মধ্যে। সেই ব্যক্তির এই হাল দেখে অবাক বাকিরাও। তবে তাদের মুখেও একই কথা, যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তাতে তাদের পক্ষেও সম্ভব নয় আর বাস চালানো।

সহদেববাবু কাকদ্বীপ পেট্রোল পাম্পের কাছে থাকেন। পাড়ায় অত্যন্ত মিশুকে বলেই পরিচিত। এহেন সহদেববাবুকেই এখন দোরে দোরে বলতে হচ্ছে তার কাছ থেকে পাড়ার সবাই যেন সবজি নেন। প্রথমদিকে, কেউ কিছু পাত্তা না দিলেও, পরবর্তী সময় কাকদ্বীপ বাস স্ট্যান্ড কাছেই তিনি বাজার বিক্রি করতে বসেছেন। সহদেব বাবুর কথায়, "এক মাস ধরে একটা বাস বসে আছে। কোনও রোজগার নেই। চালক, কন্ডাক্টরদের কিভাবে টাকা দেব। আমাদের সংসার চলছে না। তাই বাধ্য হয়েই এই পেশা বেছে নিয়েছি।" এই অবস্থা একজন বা দু'জনের নয় কলকাতা ও শহরতলির অনেক বাস মালিকদেরই এই অবস্থা।

বাস মালিক সংগঠনের নেতা রাহুল চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, "প্রতিদিন একাধিক বাস মালিক, চালক, কন্ডাকটর আমাদের ফোন করছেন। খাবার পয়সাটুকু তাদের নেই। তারা বুঝে উঠতে পারছেন না তাদের সংসার চলবে কী করে? অনেকেই তাই আনাজ বিক্রি বা ইট ভাটায় কাজ বেছে নিচ্ছেন"। বাস মালিকরাও অপারগ হয়ে উঠেছেন। তারাও বুঝে উঠতে পারছেন না আর কতদিন সাহায্য করা সম্ভব। লকডাউন উঠে গেলেও ফের রাস্তায় বাস নামতে পারবে কিনা তা নিয়ে সংশয় আছে।

জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেটের সাধারণ সম্পাদক তপন বন্দোপাধ্যায়ের দাবি, " আশ্চর্য হবেন না যদি দেখেন বাসের ব্যাটারি বা অন্যান্য জিনিস আর নেই। হাতে খাবার পয়সা না জুটলে এগুলো বিক্রি করে দিতে হবে।" রোজগার না থাকলে কেউ আর এই পেশার সাথে যুক্ত থাকবেন না বলেই দাবি বাস ব্যবসার সাথে যুক্ত ব্যক্তিদের। হাওড়ার মতো জেলাতেও একাধিক বাস মালিক রাস্তায় বসে আনাজ বিক্রি করতে চেয়ে সংগঠনকে জানিয়েছেন। সহদেববাবু যে পথ দেখালেন, সেটাই ভবিষ্যৎ বলে মত বাস সংগঠনের নেতাদের।

First published: April 19, 2020, 11:09 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर