করোনাকে 'ডোন্ট কেয়ার', দক্ষিণ মুম্বইয়ের দামী বার-রেস্তোরাঁয় ফুর্তিতে ব্যস্ত লোকজন! জরিমানা পুরসভার

করোনাকে 'ডোন্ট কেয়ার', দক্ষিণ মুম্বইয়ের দামী বার-রেস্তোরাঁয় ফুর্তিতে ব্যস্ত লোকজন! জরিমানা পুরসভার

দামী রেস্তোরাঁর বিরুদ্ধে করোনা নির্দেশিকা লঙ্ঘনের জন্য অভিযোগ দায়ের করে পুরসভা৷ উপস্থিত ২৪৫ জনকে জরিমানাও করা হয়৷

দামী রেস্তোরাঁর বিরুদ্ধে করোনা নির্দেশিকা লঙ্ঘনের জন্য অভিযোগ দায়ের করে পুরসভা৷ উপস্থিত ২৪৫ জনকে জরিমানাও করা হয়৷

  • Share this:

    #মুম্বই: ফের দেশে করোনার গ্রাফ উর্ধ্বমুখী৷ কিন্তু সচেতনাতার অভাব সর্বত্র৷ বাজার-দোকান, সব জায়গায় মানুষের ভিড় নজরে পড়ছে৷ এমনকী কেউ কেউ মাস্ক ছাড়াই রাস্তায় বেরচ্ছেন৷ এরই মধ্যে বেশ কিছু রাজ্যে করোনার বাড়বাড়ন্ত নিয়ে ফের একবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী৷ নতুন নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে৷ মহারাষ্ট্রে করোনার অবস্থা সব থেকে খারাপ৷ প্রতিদিনই নতুন করে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ৷ এরই মধ্যে করোনা নিয়ে ভয়কে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে দক্ষিণ মুম্বইয়ে পার্টিতে মত্ত থাকলেন কয়েক শো মানুষ৷ দক্ষিণ মুম্বইয়ের মতো ঝা চকচকে এলাকায় দামী বার ও রেস্তোরাঁয়া এমন অনিয়মে চক্ষু চড়কগাছ অনেকেরই৷ দেশ থেকে করোনা যে এখনও বিদায় নেয়নি, উল্টে দ্বিতীয় ঢেউয়ের কথা বলা হচ্ছে৷ এসব তথ্যকে ডোন্ট কেয়ার মনোভাব দেখিয়ে পার্টিতে ব্যস্ত থাকলেন একদল মানুষ৷ মধ্যরাত পর্যন্ত অর্বাজাইন রেস্তোরাঁ অ্যান্ড বার-এ চলছিল পার্টি৷ শেষ পর্যন্ত বৃহনমুম্বই কর্পোরেশনে আধিকারিকদের হস্তক্ষেপে বন্ধ হয় হইচই৷ নামি-দামী রেস্তোরাঁর বিরুদ্ধে করোনা নির্দেশিকা লঙ্ঘনের জন্য অভিযোগ দায়ের করে পুরসভা৷ উপস্থিত ২৪৫ জনকে জরিমানাও করা হয়৷

    মহারাষ্ট্রে করোনার সংক্রমণের সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। গত একদিনে রেকর্ড ২৩১৭৯ নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন৷ তাহলে কি দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢউ আসন্ন? এই দুশ্চিন্তায় সকলে৷ বুধবার, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আবারও সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী সমস্ত রাজ্যকে করোনার প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ নেওয়ার আবেদন করেন। এর আগে ১৭ সেপ্টেম্বর, মহারাষ্ট্রে ২৪৬১৯ করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন৷ নতুন করে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৩৭০৫০৭-তে পৌঁছেছে৷

    আরও পড়ুন আর গা ছাড়া ভাব নয়! করোনা বাড়ছে, সতর্ক প্রশাসন...আর আপনি?

    সংক্রমণ ফের একবার বৃদ্ধি পাওয়া এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আবেদনের পরে অনেক রাজ্য বেশ কিছু ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। করোনার কারণে আহমেদাবাদে আবারও জিম, স্পোর্টস ক্লাব, গেমিং জোন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একইভাবে, দিল্লি সংলগ্ন উত্তর প্রদেশ, নয়াডা এবং গাজিয়াবাদে ১৪৪ ধারা জারি হয়েছে। ১০২ দিনের পরে, বুধবার, আবারও দেশে করোনার সংক্রমণ হাতে বাইরে চলে গিয়েছে৷ সর্বাধিক ৩৫৮৮৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন৷ আবারও সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ মহারাষ্ট্র৷

    Published by:Pooja Basu
    First published:

    লেটেস্ট খবর