corona virus btn
corona virus btn
Loading

নজরবন্দি করে রেখেছে প্রশাসন, হুঙ্কার বিজেপি সাংসদের

নজরবন্দি করে রেখেছে প্রশাসন, হুঙ্কার বিজেপি সাংসদের
আবাসনের ভিতরেও সামাজিক দূরত্ব মানছেন রায়গঞ্জ সাংসদ।

বিজেপি জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, পুলিশ তৃনমূল কংগ্রেসের হয়ে কাজ করা বন্ধ না করলে লকডাউনের মধ্যেই তাঁরা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবেন।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: আবাসন ছেড়ে কয়েক মিনিটের জন্য বাইরে বের হয়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চোধুরী। আর তাতেই হুলুস্থুল পুলিশ মহলে। পুলিশের গতিবিধি আন্দাজ করে সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আবার আবাসনে ফিরে আসেন। এখন তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, পুলিশ কেন তাঁকে খুঁজছিল তার কারণ সাত ঘন্টার মধ্যে জানাতে না পারলে বিষয়টি নিয়ে উচ্চ পর্যায়ে অভিযোগ করবেন।

গত ৩১ মার্চ কলকাতা থেকে রায়গঞ্জে আসেন এলাকার সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চোধুরী।অন্য জেলা থেকে মন্ত্রী দেবশ্রী চোধুরী রায়গঞ্জে আসায় জেলা প্রশাসন তাঁকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেন। আবাসনে কোয়ারেন্টাইনে পোস্টার লাগিয়ে দেওয়া হয়। হোম কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ হয় গত ১৪ এপ্রিল। অভিযোগ, মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে থেকেই মন্ত্রীর গতিবিধির উপর বিশেষ নজরদারি চালাচ্ছিল পুলিশ।

শনিবার বিকাল পাঁচটার নাগাদ মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী অন্য একজনের স্কুটি চেপে বাইরে বের হন।পুলিশ এই খবর পাবার পর বিশাল বাহিনী নিয়ে তাঁর খোঁজে আসরে নামে। দেবশ্রী রায়গঞ্জ সুর্দশনপুরের বেসরকারি একটি স্কুলের সামনে দিয়ে চক্কর কেটে আবার তিনি আবাসনে ঢুকে পড়েন। পুলিশ তাঁকে কেন খুঁজছে, এই প্রশ্নে মন্ত্রী উত্তেজিত হয়ে বলেন, "রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী তাঁকে নজরবন্দি করে রেখেছেন।" কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ হবার পরও তাঁকে কেন নজরবন্দি করে রাখা হয়েছে তার উত্তর দাবি করেন তিনি।

দেবশ্রী দেবী জানিয়েছেন, দীর্ঘ এক মাস বাড়িতে থেকে শারিরিক সমস্যা তৈরি হয়েছে।তাই আবাসন থেকে ৩০ গজ দূরে একটি স্কুল মাঠে হাঁটতে গিয়েছিলেন।তিনি কোনও সাধারনের সঙ্গে দেখা করতে যাননি। তাঁর অভিযোগ, লকডাউনের মধ্যে অসংখ্য মানুষ রাস্তায় হেঁটে, মোটরবাইক নিয়ে অযথা ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আর তিনি জনপ্রতিনিধি হওয়া সত্বেও মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে পুলিশ তাঁকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে।

বিজেপি জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, পুলিশ তৃনমূল কংগ্রেসের হয়ে কাজ করা বন্ধ না করলে লকডাউনের মধ্যেই তাঁরা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবেন।

পুলিশ অবশ্য জানাচ্ছে,লকডাউনে মধ্যে সাংসদ কী কারণে আবাসন ছেড়ে বাইরে এসেছেন তা জানতেই আবাসনের সামনে তাঁদের আসা।

First published: April 26, 2020, 12:37 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर