corona virus btn
corona virus btn
Loading

"কলকাতার অবস্থাও "নিউইয়র্ক" শহরের মত হতে পারে, বাজার করতেও বেরবেন না", আমেরিকা থেকে বার্তা বাঙালি বিজ্ঞানীর

এই মুহূর্তে গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা নিরিখে চীন, ইতালিকে ছাপিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র শীর্ষস্থানে পৌঁছেছে।

  • Share this:

#কলকাতা: সোশ্যাল ডিসটেন্স বা সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখলে করোনা ভাইরাসের চেহারা কি মারাত্মক আকার নিতে পারে তারই ইঙ্গিত আমেরিকা থেকে জানালেন এক বাঙালি বিজ্ঞানী। এই মুহূর্তে গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা নিরিখে চীন, ইতালিকে ছাপিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র শীর্ষস্থানে পৌঁছেছে। তবে শীর্ষস্থানে পৌঁছানোর নির্দিষ্ট কিছু কারণও রয়েছে। এমনই সব অভিজ্ঞতার কথা আমেরিকা থেকে জানাচ্ছেন বাঙালি বিজ্ঞানী ডঃ সৌনক সাহু। তিনি জানাচ্ছেন-

"বর্তমানে গোটা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র লকডাউন এর মধ্য দিয়ে চলছে। একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য বাজার খুললেও একাধিক জমায়েত করতে দেওয়া হচ্ছে না। শুধুমাত্র নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস ওষুধের দোকান গুলি সীমিত সময়ের জন্য খোলা রাখা হচ্ছে। বিশেষত আমেরিকার প্রশাসনের তরফে দেবা সমস্ত গাইডলাইন বা নির্দেশিকা এখানে সবাই মেনে চলছে। এখানকার মানুষরা এতটাই সচেতন যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের কোন লক্ষণ বুঝতে পারলেই তৎক্ষণাৎ নিজেদেরকে গৃহবন্দি করে রাখছেন। এ রকমই সচেতনতা ভারত তথা কলকাতাা বাসীর মধ্যে তৈরি করতে হবে। না হলে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হলে তা আটকানো সম্ভব হবে না গোটা দেশ তথা কলকাতার পক্ষে। আমেরিকা থেকে বসেই খবর পাচ্ছি কলকাতা ও জেলাগুলোতে প্রত্যেকদিন বাজারগুলিতে একাধিক মানুষ জমায়েত করছেন হুড়মুড়িয়ে জিনিস কিনছেন। আমিও কলকাতার ছেলে। কিন্তুু আমি মনে করি এই সময় গোটা রাজ্যের সচেতনতা তৈরি না হলে পরিস্থিতি বিপদজনক হতে পারে। পরিস্থিতির গুরুত্ব না দিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে ঠিক এই ভাবেই এখন প্রত্যেকদিন করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে। তবে শুধু নিউইয়র্ক নয়, একাধিক শহরকেন্দ্রিক জায়গাগুলোতে একই ছবি। তাই আমি অনুরোধ করব বাজার করে নয় বাড়িতে থেকেই নিজেদেরকে নিরাপদে রাখুন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বর্তমানে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত শীর্ষ স্থানে পৌঁছে যাওয়ায় বিশ্বজুড়ে হইচই শুরু হয়ে গেছে। কিন্তু এই অবস্থা একদিনে হয়নি। এখানকার মানুষের মধ্যে সচেতনতা অনেকটা দেরিতে তৈরি হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের ছেলে হিসেবে বলব এই ভুলটা আপনারা করবেন না।"

মূলত কলকাতা সহ গোটা পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন বাজারগুলিতে যেভাবে জিনিস কেনার জন্য ভিড় করছেন সাধারণ মানুষ তা নিয়েই উদ্বেগ প্রকাশ করছেন আমেরিকা থেকে বাঙালি বিজ্ঞানী ডঃ ডঃ সৌনক সাহু। সম্প্রতি পুলিশের তরফে ছক কেটে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে বাজার করার কথা বলা হলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা মানা হচ্ছে না। এক্ষেত্রে করোনাভাইরাস আটকাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন এর নিয়ম বিধি মেনে চলাটাই  সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করিয়ে দিয়েছেন এই বাঙালি বিজ্ঞানী।

Somraj Bandopadhyay

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: March 29, 2020, 8:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर