অগ্নিকন্যা বনাম ভূমিপুত্র, মমতার মনোনয়নের দিনে ফুটছে নন্দীগ্রাম

অগ্নিকন্যা বনাম ভূমিপুত্র, মমতার মনোনয়নের দিনে ফুটছে নন্দীগ্রাম

নন্দীগ্রামে প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল চিত্র

বিজেপি নন্দীগ্রামের প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ককে প্রার্থী করেছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বনাম শুভেন্দু অধিকারীর লড়াইয়ে এবার জমজমাট রাজ্যের এই আসন।

  • Share this:

#নন্দীগ্রাম:  বুধে মমতা, শুক্রে শুভেন্দু। দুই হেভিওয়েট প্রার্থীর মনোনয়ন পর্বের সাক্ষী হতে চলেছে বাংলা। আট থেকে আশি সকলেরই নজর নন্দীগ্রামের ভোটের লড়াইকে ঘিরে। সব মিলিয়েই নন্দীগ্রামের আসন এবার হাইভোল্টেজ। বিজেপি নন্দীগ্রামের প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ককে প্রার্থী করেছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বনাম শুভেন্দু অধিকারীর লড়াইয়ে এবার জমজমাট রাজ্যের এই আসন।

গতকালই নন্দীগ্রামে পা রেখেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল প্রার্থী   হিসাবে তিনি পা রেখেছেন জমি আন্দোলনের সূতিকা গৃহে। আজ তার মনোনয়ন জমা দেওয়ার কথা হলদিয়ায়। বেলা আড়াইটে নাগাদ হলদিয়া প্রশাসনিক ভবনে তার মনোনয়ন পেশ করার কথা। বুধবার বেলা একটা নাগাদ নন্দীগ্রামের রেয়াপাড়ার এক শিব মন্দিরে পুজো দিতে যাবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখান থেকে বেলা দু'টো নাগাদ তিনি চলে আসবেন হলদিয়ায়। সেখানে তিনি প্রায় এক কিলোমিটার একটি পদযাত্রা করবেন। তারপর তিনি মনোনয়ন পেশ করবেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, "নিয়ম মেনেই তিনি জমা দেবেন মনোনয়ন। অযথা ভিড় করতে বারণ করা হচ্ছে। আমাদের সমর্থকরা দূরে থাকবেন।" এদিনই অবশ্য তাঁর ফিরে যাওয়ার কথা কলকাতায়। তবে শীঘ্রই নন্দীগ্রাম ১ ও ২ নম্বর ব্লকে দুটি মিছিল করবেন মমতা।

অন্য দিকে শুক্রবার মনোনয়ন পেশ করবেন শুভেন্দু অধিকারী। সূত্রের খবর, শুভেন্দু অধিকারী মনোনয়ন পেশ করার আগেই একটি মিছিল করবেন। তবে নির্বাচন কমিশনের নিয়মানুযায়ী তিনি মনোনয়ন পেশ করতে যাবেন বলে জানিয়েছেন। তবে রোড শো'তে তার সাথে থাকার কথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান ও স্মৃতি ইরানির।

নন্দীগ্রাম আসন জিতবেন বলেই আত্মবিশ্বাসী বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। নন্দীগ্রাম আসনে তিনি হাফ লাখ ভোটে জিতবেন বলে নিজেই জানিয়েছেন। পাল্টা রণকৌশল অবশ্য সাজিয়ে ফেলেছে তৃণমূল। মমতা বন্দোপাধ্যায়ের প্রচার থেকে নির্বাচনী কাজ দেখাশোনা করার জন্যে গঠন করা হয়েছে বিশেষ দল। যার দায়িত্বে আছেন রাজ্যসভার দুই সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় ও দোলা সেন। এছাড়া বিশেষ দায়িত্বে আছেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু। ইতিমধ্যেই মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সমর্থনে দেওয়াল লিখন হয়ে গেছে নন্দীগ্রামে।

পিছিয়ে নেই শুভেন্দু শিবির। প্রতিদিন দলীয় কার্যালয়ে এসে বসছেন। সেখান থেকেই তিনি চালিয়ে যাচ্ছেন ভোট প্রচার। যদিও শুভেন্দু অধিকারীর দাবি, তিনি এলাকার ছেলে। সারাবছর তার সাথে এলাকার মানুষের প্রতিদিন যোগাযোগ থাকে। তাই নতুন করে তাকে ভোট বলে প্রচার করতে হয় না৷ রাজ্যের বিধানসভা ভোটের আগে এই দুই হেভিওয়েটের লড়াইয়ে জমজমাট বঙ্গ রাজনীতি। মমতা বন্দোপাধ্যায় আগেই বলে এসেছেন তিনি সব সময় প্রচারে সময় দিতে পারবেন না নন্দীগ্রামে। তবে ভোটের পরে তিনি এখানে প্রতিনিয়ত আসবেন। আর শুভেন্দু অধিকারী এই ইস্যুতেই মমতা বন্দোপাধ্যায়কে বহিরাগত বলে কটাক্ষ ছুঁড়ে দিচ্ছেন তার এক সময়ের দলনেত্রীর দিকে।

Published by:Arka Deb
First published: