কালনার একশো আট শিবমন্দির-সহ দর্শনীয় স্থানগুলি তালাবন্ধ করল আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া 

মূল দর্শনীয় স্থানগুলি তালাবন্ধ হয়ে যাওয়ায় পর্যটন শিল্পে তার যথেষ্টই খারাপ প্রভাব পড়বে, হোটেল-সহ যাবতীয় ব্যবসা মার খাবে বলে মনে করছেন বাসিন্দারা।

মূল দর্শনীয় স্থানগুলি তালাবন্ধ হয়ে যাওয়ায় পর্যটন শিল্পে তার যথেষ্টই খারাপ প্রভাব পড়বে, হোটেল-সহ যাবতীয় ব্যবসা মার খাবে বলে মনে করছেন বাসিন্দারা।

  • Share this:

    #বর্ধমান: করোনা সতর্কতায় কালনার ১০৮ শিব মন্দিরে তালা ঝোলালো আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া। সেইসঙ্গে কালনা রাজবাড়ি-সহ তাদের আওতাধীন দর্শনীয় স্থানগুলিতে পর্যটকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হল। আপাতত ৩১ মার্চ পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা থাকবে। প্রয়োজনে এই সময়সীমা আরও বাড়ানো হতে পারে। মূল দর্শনীয় স্থানগুলি তালাবন্ধ হয়ে যাওয়ায় পর্যটন শিল্পে তার যথেষ্টই খারাপ প্রভাব পড়বে, হোটেল-সহ যাবতীয় ব্যবসা মার খাবে বলে মনে করছেন বাসিন্দারা। তবে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানাচ্ছেন সকলেই।

    পূর্ব বর্ধমানের গঙ্গা তীরের ইতিহাস প্রাচীন শহর কালনা। দর্শনীয় বিভিন্ন মন্দির স্হাপত্যের টানে সারা বছরই কালনায় ভিড় করেন দেশ বিদেশের পর্যটকরা। সেই ভিড় থেকেই ছড়াতে পারে মারণ করোনা ভাইরাস। সেই আশঙ্কা দূর করতেই বাড়তি সতর্কতা হিসেবে  বুধবার থেকে কালনার একশো আট শিব মন্দির, রাজবাড়ি, লালজি মন্দিরে প্রবেশ বন্ধ করে দেয় আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া। এদিন রাজবাড়ি দেখতে এসে প্রবেশ পথ তালাবন্ধ দেখে হতাশ হয়ে ফিরতে হয় অনেককেই।

    একই কারণে বর্ধমানের রমনাবাগান অভয়ারণ্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার থেকেই দর্শনার্থীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ বর্ধমানের এই মিনি জুতে। বন্ধ বর্ধমানের কৃষ্ণসায়র পরিবেশ কাননও। বর্ধমানের মেঘনাদ সাহা তারা মন্ডল বন্ধের কথা আগেই ঘোষণা করেছে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সব মিলিয়ে জন সমাগম হয় এমন সব এলাকাই বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। প্রশাসন জানিয়েছে, করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে জনবহুল এলাকা এখন এড়িয়ে চলাই উচিত। সেজন্য এই পদক্ষেপ।

    Saradindu Ghosh

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: