করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

বারাসাত পৌরসভার প্রশাসকের আরোগ্য কামনায় ‌একসঙ্গে সবধর্মের মানুষ

বারাসাত পৌরসভার প্রশাসকের আরোগ্য কামনায় ‌একসঙ্গে সবধর্মের মানুষ

করোনাতে অসুস্থ হয়ে আইডি হাসপাতালে ভর্তি বারাসাত পৌরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারপার্সন সুনীল মুখোপাধ্যায়

  • Share this:

#‌বারাসাত:‌ এ এক অন্য সম্প্রীতির উদাহরণ। অনেকটাই যেন গল্পকথা। প্ৰিয় মানুষ করোনাতে আক্রান্ত। রোগমুক্তি ও আরোগ্য কামনায় ধর্মীয় মেলবন্ধনের এক নতুন নজির তৈরি করলেন অনুরাগীরা।

করোনাতে অসুস্থ হয়ে আইডি হাসপাতালে ভর্তি বারাসাত পৌরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারপার্সন সুনীল মুখোপাধ্যায়। তাঁর আরোগ্য কামনায় সবধর্মের মানুষ একত্রিত হলেন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যাবেলায়। সর্বধর্ম সমন্বয়ে সম্মিলিত হয়ে বারাসাত পৌরসভার প্রশাসনিক বোর্ডের শীর্ষপদের অধিকারীর দ্রুত আরোগ্য কামনা করলেন একদল মানুষ। চলল কায়মনোবাক্যে প্রার্থনা।

চারদিন আগে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসায় তড়িঘড়ি কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি হন তৃণমূল নেতা ও বিগত দশ বছর ধরে বারাসাত পৌরসভার চেয়ারম্যান সুনীল মুখোপাধ্যায়। গণিতের প্রাক্তন স্কুল শিক্ষক সুনীল মুখোপাধ্যায় জনপ্রিয় নেতা ও বহু মানুষের কাছের মানুষ। তিনি অসুস্থ হতেই সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইটে সব রাজনৈতিক দল থেকেই তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনার ঢল নেমেছে। ধর্মীয় উপাচারে আরোগ্য হয় কিনা তা বির্তক থাকতে পারে,কিন্তু মানুষের ভালোবাসায় জয় হয় প্রতিবন্ধকতা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যেবেলা প্ৰিয় নেতার আরোগ্য কামনা তারই যেন প্রতিফলন। এই সর্বধর্ম প্রার্থনার আয়োজক বাবু খানের বক্তব্য, ‘‌বরাবর সুনীলদার সঙ্গে রাজনীতি করতে গিয়ে দেখেছি মানুষটি ধর্মীয় ভাবাবে‌গের উর্দ্ধে গিয়ে সব সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ‌বামেদের ছেড়ে যাওয়া বেহাল বারাসাত পুরসভা ও শহরকে ধীরেধীরে উন্নয়নের পথে নিয়ে এসেছেন। আজ শহরের ঝকঝকে রাস্তা ও ঝকঝকে আলো সব ওয়ার্ডে এসেছে সুনীল মুখার্জির নেতৃত্বে। শহরের নিকাশির সমস্যা সমাধান কিংম্বা গঙ্গা থেকে জল নিয়ে এসে শোধন সবই হয়েছে তার আমলে। সেই মানুষটা আজ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। শুধুমাত্র শহরবাসীর স্বার্থ দেখে লকডাউনে ও দিনরাত এক করে শহরের রাস্তায় রাস্তায় ঘুরেছে নাগরিকদের সুবিধা অসুবিধা বুঝে ব্যবস্থা নিতে। সুনীল মুখার্জির মতো মানুষকে এই শহরের বিশেষ প্রয়োজন।’‌

RAJARSHI Roy

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: July 3, 2020, 4:47 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर