বার কাউন্সিল ইতিহাসে প্রথম, অতিমারিতে অর্থ সাহায্যে এগিয়ে এলেন আইনজীবীরা

রাজ্য বার কাউন্সিলের অধীনস্থ প্রায় ৪০০০০ আইনজীবী আমাদের রাজ্যে ।

রাজ্য বার কাউন্সিলের অধীনস্থ প্রায় ৪০০০০ আইনজীবী আমাদের রাজ্যে ।

  • Share this:

#কলকাতা:  দীর্ঘ লকডাউনে বিপর্যস্ত আইনজীবীরাও। আর্থিক সাহায্য নিয়ে হাত বাড়ালো রাজ্য বার কাউন্সিল। আকারে ছোট আতঙ্কে বড়। করোনা ভাইরাসে জবুথবু বিশ্ব অর্থনীতি। সমাজের সব অংশে প্রভাব পড়েছে লকডাউনের। ২২ মার্চ ২০২০ জনতা কার্ফুর দিন থেকে ৩ মে ২০২০ পর্যন্ত অফিস,  আদালত বন্ধ । অন্য সব অংশের সঙ্গে সমান ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আইনি পরিষেবা সঙ্গে যুক্তরাও। রাজ্য বার কাউন্সিলের অধীনস্থ প্রায় ৪০০০০ আইনজীবী আমাদের রাজ্যে ।

লম্বা লকডাউনের জেরে অনেক আইনজীবীর সমস্যা তীব্র । জরুরি মামলা ছাড়া শুনানি হচ্ছে না। কলকাতা হাইকোর্টের শুনানি হচ্ছে ভিডিও কনফারেন্সে। এমনকি জামিন, আগাম জামিনের মামলার শুনানিও হচ্ছে ই-পথে। সেরেস্তা বন্ধ। চেম্বারে মক্কেল নেই। এই অবস্থায় দীর্ঘ লকডাউনে সমস্যায় পড়া আইনজীবিদের পাশে এসে দাঁড়ালো বার কাউন্সিল অফ ওয়েস্ট বেঙ্গল। আইনজীবীদের এককালীন আর্থিক সাহায্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বার কাউন্সিল।

প্রাথমিকভাবে এককালীন আইনজীবীদের ৩০০০ টাকা করে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রাজ্য বার কাউন্সিলের এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান শ্যামল ঘটক জানান, " ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত ই-মেল করে আবেদন জানাতে পারবেন আইনজীবীরা। আইনজীবীদের অন্য কোনও অায়ের উৎস না থাকলে আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে।" আবেদনপত্র সামনে এসেছে ইতিমধ্যেই। আইনজীবী কোন আদালতের কাজের সঙ্গে যুক্ত, কোন আইনজীবীদের অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে যুক্ত তা উল্লেখ করতে হবে আবেদনপত্রে। আবেদন করতে হবে বার কাউন্সিলের ই-মেল অ্যাকাউন্ট westbengalbarcouncil@gmail.com। আবেদনপত্র পূরণ করে বার কাউন্সিলের অফিসে এসেও জমা দেওয়া যাবে। আইনজীবী কোনও ল’ফার্মে যুক্ত থাকলে বা কোনও সংস্থায় বেতন ভুক্ত হলে আবেদনপত্র বাতিল হবে। অনলাইনে টাকা ট্রান্সফার করবে বার কাউন্সিল। সূত্রের খবর, বার কাউন্সিলের কিছু গচ্ছিত টাকা থেকেই আইনজীবীদের সাহায্য প্রদান হবে। কলকাতা হাইকোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশন তাদের সদস্যদের আগেই আর্থিক সাহায্য প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়। লম্বা লকডাউনে জেরবার রাজ্যের আইনজীবীদের আর্থিক সাহায্যের সিদ্ধান্ত এবার খোদ রাজ্য বার কাউন্সিলের।

Arnab Hazra

Published by:Elina Datta
First published: