• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • লকডাউনে আটকে পড়েছেন ভারতে, বাংলাদেশীদের ফেরাতে এবার উদ্যোগী সরকার

লকডাউনে আটকে পড়েছেন ভারতে, বাংলাদেশীদের ফেরাতে এবার উদ্যোগী সরকার

 কলকাতা থেকে ১ মে এবং ২ মে দু'টি বিমান দুপুর আড়াইটেয় ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে। এছাড়াও ২ মে দিল্লি থেকে এবং ৩ মে মুম্বই থেকে বিশেষ বিমান ছাড়তে পারে।

কলকাতা থেকে ১ মে এবং ২ মে দু'টি বিমান দুপুর আড়াইটেয় ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে। এছাড়াও ২ মে দিল্লি থেকে এবং ৩ মে মুম্বই থেকে বিশেষ বিমান ছাড়তে পারে।

কলকাতা থেকে ১ মে এবং ২ মে দু'টি বিমান দুপুর আড়াইটেয় ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে। এছাড়াও ২ মে দিল্লি থেকে এবং ৩ মে মুম্বই থেকে বিশেষ বিমান ছাড়তে পারে।

  • Share this:

#কলকাতাঃ ভারতে আটকে পড়া নিজের দেশের নাগরিকদের এ বার দেশে ফেরাতে উদ্যোগী বাংলাদেশ হাইকমিশন। আগামী ৩০ এপ্রিল থেকে কলকাতা, দিল্লি, চেন্নাই এবং মুম্বই থেকে একাধিক বিমানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ওই সব বিমান বাংলাদেশী নাগরিকদের নিয়ে ঢাকায় উড়ে যাবে বিমানগুলি। এ জন্য অবিলম্বে নির্দিষ্ট ফরম্যাটে আবেদন করার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে হাইকমিশন।

শুধু কাজের সূত্রেই নয়, চিকিৎসার জন্য বহু বাংলাদেশী নিয়মিত ভারতে আসেন। করোনা প্রেক্ষাপটে আচমকা লকডাউন ঘোষণা হওয়ায় তাঁদের মধ্যে অনেকেই আটকে গিয়েছেন এ দেশে। অনেকের ক্ষেত্রেই টাকা-পয়সা শেষ হয়ে যাওয়ায় বেশ অসুবিধেয় পড়ে গিয়েছেন তাঁরা। এই অবস্থায় দেশে ফেরার সুযোগ তাঁদের অক্সিজেন জোগাবে বলেই মনে করা হচ্ছে। তবে হাইকমিশন সূত্রে বলা হয়েছে, করোনায় আক্রান্ত নয়, এমন শংসাপত্র জমা দিলেই দেশে ফেরার প্রয়োজনীয় অনুমোদন মিলবে। আবেদন করতে হবে নাম, মোবাইল নম্বর, পাসপোর্ট নম্বর-সহ আরও কিছু তথ্য দিয়ে। এরপর অনুমোদন মিললেই টিকিট কাটা যাবে। টিকিট কাটতে হবে বাংলাদেশী ব্যাঙ্কের মাধ্যমেই। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে এবং অনুমোদন মিললে সংশ্লিষ্ট যাত্রী বিমানে উঠতে পারবেন। তবে তাঁকে বিমানবন্দরে যেতে হবে নিজ দায়িত্বে এবং সে জন্য এখানকার প্রশাসনের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় অনুমতি নিতে হবে।

বাংলাদেশ হাইকমিশনের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, কলকাতা থেকে ১ মে এবং ২ মে দু'টি বিমান দুপুর আড়াইটেয় ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে। এছাড়াও ২ মে দিল্লি থেকে এবং ৩ মে মুম্বই থেকে বিশেষ বিমান ছাড়তে পারে। চেন্নাই থেকে ৩০ এপ্রিল, ১ মে এবং ২ মে তিনটি ফ্লাইটে মুম্বই এবং বেঙ্গালুরুতে আটকে পড়া বাংলাদেশীদের নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। ঢাকায় পৌঁছে প্রত্যেক যাত্রীর বাধ্যতামূলক ভাবে ফের করোনা উপসর্গ আছে কিনা, তার পরীক্ষা করা হবে এবং তাঁদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হবে।

SHALINI DATTA

Published by:Shubhagata Dey
First published: