corona virus btn
corona virus btn
Loading

প্রতীক্ষার অবসান! দু’মাস পর উড়ান পরিষেবা চালু হওয়াতে প্রাণ ফিরে পেয়েছে বাগডোগরা বিমানবন্দর

প্রতীক্ষার অবসান! দু’মাস পর উড়ান পরিষেবা চালু হওয়াতে প্রাণ ফিরে পেয়েছে বাগডোগরা বিমানবন্দর

মাস দুয়েক খাঁ খাঁ করছিল বিমানবন্দর চত্বর। গতকাল, বৃহস্পতিবার সকালে যাত্রীরা আসতেই যেন প্রাণ ফিরে পেল বাগডোগরা!

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান! প্রায় দু'মাস পর উড়ান পরিষেবা চালু হয়েছে বাগডোগরা বিমানবন্দরে। মাস দুয়েক খাঁ খাঁ করছিল বিমানবন্দর চত্বর। গতকাল, বৃহস্পতিবার সকালে যাত্রীরা আসতেই যেন প্রাণ ফিরে পেল বাগডোগরা! কোভিড প্রোটোকল মেনেই ওঠানামা শুরু করল যাত্রীবাহী বিমান।

দেশের অন্য অংশে গত ২৫ মে বিমান পরিষেবা চালু হয়। কিন্তু এ রাজ্যে ২৮ মে থেকে চালু হয়েছে ডোমেস্টিক বিমান পরিষেবা। বাগডোগরা বিমানবন্দরের ডিরেক্টর P Subramaniam নিজেই যাবতীয় সুরক্ষার বিষয়টি খতিয়ে দেখেন। পারস্পরিক দূরত্ব মানা হচ্ছে কি? লাগেজ স্যানিটাইজড হচ্ছে? সবই নিজে খুঁটিয়ে দেখেন বিমানবন্দরের অধিকর্তা। প্রথমে সামাজিক দূরত্ব মেনে দাঁড়াতে হয় যাত্রীদের। তারপর এক এক করে এগিয়ে যাওয়া।

লাগেজ স্যানিটাইজেশনের পর যাত্রীর থার্মাল চেকিং। তারপর প্রবেশ পথের মুখে হ্যান্ড স্যানিটাইজারে হাত ভিজিয়ে নেওয়া। বিমানবন্দরের ভেতরেও একইভাবে স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিধি মানতে হচ্ছে। এদিন ৬টি বিমান ওঠা নামা করে বাগডোগরায়। কলকাতা, গুয়াহাটি, দিল্লি, চেন্নাই এবং মুম্বইয়ের মধ্যে উড়ান চলাচল করে। শিলিগুড়ি-সহ উত্তরবঙ্গে আটকে পড়া ভিন রাজ্য, ভিন দেশের বাসিন্দারা সকাল সকাল পৌঁছে যান বাগডোগরায়।

পাহাড়ে বেড়াতে এসেছিলেন বাংলাদেশের এক মহিলা পর্যটক। শিলিগুড়িতে পৌঁছনর দিন থেকে লকডাউন শুরু হওয়ায় তাঁর আর পাহাড়ে ওঠা হয়নি। শিলিগুড়িতেই বাড়ি ভাড়া নিয়ে ছিলেন। খুশির ইদেও পরিবারের সঙ্গে নমাজ পড়তে পারেননি। বৃহস্পতিবার বাগডোগরা থেকে কলকাতা যান। ৩১ মে বিশেষ বিমানে ফিরবেন ঢাকায়। স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন। একইভাবে সিকিমে একটি বেসরকারি ইন্সটিটিউশনে পড়তে এসে বিপাকে পড়ে যান ভিন রাজ্যের বহু পড়ুয়া। এদিন একে একে দিল্লি, মুম্বইয়ের বিমানে চাপেন তাঁরা। তাঁদের কথায়, দুশ্চিন্তায় ছিলেন পরিবারের লোকেরা। কিছুটা স্বস্তি এল। কেননা ইন্সটিটউশনেও ছুটি চলছে।

পার্থ প্রতিম সরকার

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: May 29, 2020, 2:26 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर