corona virus btn
corona virus btn
Loading

টনক নড়েনি পুলিশি নিষেধাজ্ঞায়, লক ডাউন ভাঙায় এক মাসে রাজ্যে গ্রেফতার ৫০ হাজারেরও বেশি

টনক নড়েনি পুলিশি নিষেধাজ্ঞায়, লক ডাউন ভাঙায় এক মাসে রাজ্যে গ্রেফতার ৫০ হাজারেরও বেশি
প্রতীকী ছবি

লক ডাউন ভাঙার অপরাধে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৮৮ ধারায় সরকারি আদেশ অমান্য করার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতাঃ করোনা মোকাবিলায় গোটা দেশে ঘোষিত লক ডাউনের একমাস পেরিয়েছে সদ্যই। তার মধ্যেই এ রাজ্যে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ লক ডাউন উপেক্ষা করেছে বলে অভিযোগ। তেমনটাই বলছে পুলিশের হিসেব। রাজ্য পুলিশের হিসেব বলছে, এই একমাসে লক ডাউন না মানার অভিযোগে রাজ্যে গ্রেফতার হয়েছে ৩০ হাজারের বেশি মানুষ। কলকাতা পুলিশের হিসেব বলছে, শহরে এই এক মাসে কুড়ি হাজারের বেশি মানুষ গ্রেফতার হয়েছে। সূত্রের খবর, প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৮৮ ধারায় সরকারি আদেশ অমান্য করার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। কিন্তু এরপরেও মানুষের মধ্যে যে সচেতন নয় তার বাস্তব ছবি ধরা পড়ছে বিভিন্ন বাজারে।

করোনা মোকাবিলায় কেউ যাতে লক ডাউনকে হালকাভাবে না নেয়, কেউ যাতে খুব জরুরি কারণ ছাড়া বাড়ির বাইরে না বেরোয়, সেজন্য পুলিশের তরফে লাগাতার প্রচার করা হচ্ছে। অলিগলি, বাজারে গিয়ে পুলিশ প্রচার করছে, লক ডাউন মানার জন্য অনুরোধ করছে। দোকান-বাজারে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে লাগাতার প্রচার চালানো হচ্ছে। কিন্তু তারপরেও মানুষের টনক নড়ছে না। দোকান-বাজার খুললেই ঘাড়ের উপর উঠে কেনাকাটা করছে মানুষ।

বাজারে মানুষ যখন সামাজিক দূরত্ব মানছে না, তখন বাজারকেই সামাজিক দূরত্বে বসিয়েছে পুলিশ। অর্থাৎ ঘিঞ্জি বাজারকে সরিয়ে কাছাকাছি মাঠে ফাঁকা জায়গায় নির্দিষ্ট দূরত্বে বসিয়েছে পুলিশ। রাজ্যে বহু বাজারকেই এভাবে সরানো হয়েছে যাতে ক্রেতাদের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকে। যেখানে আশেপাশে মাঠ নেই সেখানেই বাজারকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া রাজ্য বা কলকাতার কোন কোন এলাকায় সব থেকে বেশি মানুষ লকডাউনকে উপেক্ষা করছে তা চিহ্নিত করতে বিভিন্ন জায়গায় ড্রোন ওড়াচ্ছে পুলিশ। আকাশ পথে নজরদারি চালিয়ে দেখা হচ্ছে কে বা কারা লকডাউন উপেক্ষা করছে। সেই মতো তাদেরকে চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। রাজ্য পুলিশের এক কর্তা বলেন, "লকডাউন কেউ অমান্য করছে কিনা সেদিকে আমাদের নজর রয়েছে। সরকারি আদেশ অমান্য করলেই কড়া  ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আগামীতেও এরকমই কড়া নজরদারি চলবে।"

SUJOY PAL

Published by: Shubhagata Dey
First published: April 26, 2020, 9:26 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर